এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের এই ‘প্রাপ্য’ মিটিয়ে দিতে কালীপুজোর আবহেই বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের এই ‘প্রাপ্য’ মিটিয়ে দিতে কালীপুজোর আবহেই বড় ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর


আলোর উৎসবেই খুশির খবর রাজ্যের সরকারি কর্মচারীদের জন্যে। আগামী বছর কয়েকটি উৎসবের দিন রবিবার পড়ে যাওয়ায় কর্মীরা যাতে তাদের প্রাপ্য ছুটি থেকে বঞ্চিত না হন তার জন্যে রাজ্যসরকারের পক্ষ থেকে বাড়তি ছুটির ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী বছর কালিপুজো, সরস্বতী পুজো ও লক্ষীপুজোর সঙ্গে ১৪ এপ্রিল আম্বেদকরের জন্মদিনের ছুটি এবং ১০ নভেম্বর ফতেয়া দোয়াজ দাহামের ছুটি রবিবার পড়েছে।

কিন্তু আগামী বছর রাজ্যের সরকারি কর্মীদের জন্যে যে ছুটির তালিকা অর্থদপ্তর থেকে প্রকাশিত হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে সরস্বতী পুজোর ছুটি সোমবার অর্থাৎ ১১ ফেব্রুয়ারী দেওয়া হয়েছে। এই প্রথম সরস্বতী পুজোর পরেরদিন ছুটি দেওয়া হল। আগামী বছর লক্ষীপুজোও রবিবার পড়ায় লক্ষীপুজোর পরের দুই দিন ১৪-১৫ অক্টোবর (সোম ও মঙ্গলবার) রাজ্য সরকারি কর্মীদের ছুটি দেওয়া হয়েছে।

আগামী বছর কালিপুজোও(২৭ অক্টোবর) রবিবার পড়ায় পুজোর পরের দুদিন সরকারি কর্মীদের ছুটি দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ভাইফোঁটা ২৯ অক্টোবর পড়েছে,তাই ভাইফোঁটা উপলক্ষ্যে পরের দিন অর্থাৎ ৩০ অক্টোবর ছুটি দেওয়া হয়েছে৷

শুধু তাই নয়,আগামী বছর দুর্গা পুজোর সপ্তমী-অষ্টমী পড়ছে শনি ও রবিবার। এতে সরকারি কর্মীরা যে ছুটি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন তা থেকে বাঁচাতেই উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্যসরকার। এবছর ষষ্ঠীর দিন থেকেই সরকারি ছুটি শুরু হয়ে গিয়েছিল। ষষ্ঠী ছিল সোমবার। চতুর্থী,পঞ্চমী শনি রবিবার পড়ায় সে ছুটি পেয়ে গিয়েছিলেন কর্মীরা। একটানা ১৩ দিনের পুজোর ছুটি ( ৩ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত) কাটিয়েছেন এবার সরকারী কর্মীরা।

তবে ওইদিনের জন্যে আগাম ছুটি নিয়ে নিলে টানা ১৬ দিন ছুটি পাওয়ার সুযোগ ছিল সরকারি কর্মীদের। কিন্তু আগামী বছর সে সুযোগ থাকছে না। কারণ টানা ১৩ দিনের ছুটির পর ১৬ অক্টোবর বুধবার সরকারি অফিস খুলবে। আগামী বছর ৩ অক্টোবর, পঞ্চমীর দিন থেকে সরকারি কর্মীদের পুজোর ছুটি শুরু হয়ে যাবে।

অন্যদিকে সবে বরাত ও হুল দিবস উপলক্ষে যথাক্রমে মুসলিম সম্প্রদায় ও আদিবাসী সরকারি কর্মীদের বিশেষ ছুটি দেওয়া হয়। কিন্তু আগামী বছর ওই দুই ছুটিও রবিবার পড়ে গিয়েছে। তবে এই দিনগুলোর জন্য বাড়তি ছুটির কোনো ঘোষণা হয়নি এখনো। সংশ্লিষ্ট দিনগুলোর বাইরে অন্যান্য ছুটির ক্ষেত্রে চলতি বছর থেকে কোনো পরিবর্তন করা হয়নি। পাশাপাশি, এই বছরে যে যে উপলক্ষে ছুটি দেওয়া হয়েছিল সেগুলি আগামীবছর একই থাকছে এমনটাই জানানো হয়েছে রাজ্যসরকারের তরফ থেকে।

 

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

উল্লেখ্য,লোকসভা ভোটের আগে সরকারি কর্মীদের খুশি করতে এটা রাজ্যসরকারের রণকৌশল হিসাবেই দেখছে বিরোধীরা। সরকারি ভোটব্যাঙ্ক বাঁচাতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাষ্টারস্ট্রোক এটা। এই কৌশল মেনেই লোকসভা ভোটে বাজিমাত করার পরিকল্পনা রয়েছে রাজ্যের শাসকদলের,এমনটাই দাবী রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!