এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > BREAKING NEWS – সরানো হচ্ছে রাজ্যপালকে! সরকারের উপর চাপ বাড়াতেই কি সিদ্ধান্ত? বাড়ছে জল্পনা

BREAKING NEWS – সরানো হচ্ছে রাজ্যপালকে! সরকারের উপর চাপ বাড়াতেই কি সিদ্ধান্ত? বাড়ছে জল্পনা

গত এক মাস ধরে জাতীয় রাজনীতির শীর্ষ আলোচনায় রয়েছে মহারাষ্ট্র। বিজেপি-শিবসেনা জোট বেঁধে বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করলেও, ফলাফল ঘোষণার পর মুখ্যমন্ত্রী পদ নিয়ে দুই শিবিরের মধ্যে তুমুল বিরোধ বাঁধে। ফলে, সেই মুহূর্তে কেউ সরকার গড়তে রাজি হয় না। রাজ্যপাল তৃতীয় বৃহত্তম দল এনসিপিকে সরকার গঠনের জন্য ডাকলে – তারাও নতুন সরকার দিতে ব্যর্থ হয়।

এই পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়। যদিও বিরোধীদের দাবি, এনসিপিকে দেওয়া সময়ের আগেই তড়িঘড়ি মহারাষ্ট্রে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার জন্য উৎসুক হয়ে পড়েছিলেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি। কেননা, বিজেপির সঙ্গে সরকার হবে না বুঝে গিয়েই এনসিপি ও কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সরকার গঠনের তোড়জোড় করছিল শিবসেনা। ফলে রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে তখন থেকেই তুমুল বিতর্ক শুরু হয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এরপর নাটকীয়ভাবে মধ্যরাত্রে মহারাষ্ট্র থেকে রাষ্ট্রপতি শাসন তুলে নিয়ে পরের দিন ভোরবেলা থেকেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বিজেপিকে দায়িত্ব দেন রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বিজেপির দেবেন্দ্র ফড়নবীশ, উপ-মুখ্যমন্ত্রী হন এনসিপির অজিত পাওয়ার। তুমুল ক্ষোভে ফেটে পড়েন বিরোধীরা, সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় বিধায়ক না থাকা সত্ত্বেও জোর করে বিজেপিকে ক্ষমতা দিয়েছেন তিনি বলে অভিযোগ ওঠে। মামলা গড়ায় সুপ্রিম কোর্টে।

এরপর একে একে মুখ্যমন্ত্রী ও উপ-মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশ ও অজিত পাওয়ার। কেননা সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিল না তাঁদের হাতে। এরপরেই, শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরেকে মুখ্যমন্ত্রী করে সরকার গঠনের সিদ্ধান্ত নেয় শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেস জোট। কিন্তু, সামগ্রিক প্রক্রিয়ায় রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি নিজের ভূমিকা যথাযথ ভাবে পালন করেন নি বলে অভিযোগ ওঠে।

এই পরিস্থিতিতে নতুন সরকার শপথ নেওয়ার আগেই তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে। তাঁর জায়গায় মহারাষ্ট্রের নতুন রাজ্যপাল হচ্ছেন কলরাজ মিশ্র। তিনি বর্তমানে রাজস্থানের রাজ্যপাল পদে আছেন। মহারাষ্ট্রে নতুন সরকারের উপর চাপ বাড়াতেই বিজেপির প্রাক্তন এই মুখ্যমন্ত্রীকে সেখানে রাজ্যপাল করা হল বলে বিরোধী মহলে তীব্র জল্পনা ছড়িয়েছে। সব মিলিয়ে মহারাষ্ট্রে টানটান রাজনৈতিক উত্তেজনা অব্যাহত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!