এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বড় ভাঙন ফেডারেল ফ্রন্টের অন্যতম বড় শরিকের মধ্যে? চিন্তা বাড়ছে বিজেপি বিরোধীদের

বড় ভাঙন ফেডারেল ফ্রন্টের অন্যতম বড় শরিকের মধ্যে? চিন্তা বাড়ছে বিজেপি বিরোধীদের

মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হতে চলেছে ডিএমকে’‌র কা‌র্যনির্বাহী কমিটির বৈঠক। এই দলের সভাপতি ছিলেন প্রয়াত নেতা এম করুণানিধি। প্রাক্তন সভাপতির মৃত্যুর পরে দলের বর্তমান সভাপতি পদে কে বসতে চলেছেন তাই নিয়ে এদিনের বৈঠক হবে বলে আন্দাজ করা হচ্ছে। এদিকে ডিএমকে দলের অন্দরে বিবাদ আসন্ন অনুমান করে  সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনর আয়োজন করে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন আলাগিরি।

তিনি বললেন,”ডিএমকের আসল সমর্থকরা আমার সঙ্গে রয়েছেন। সময়ই তা প্রমাণ করবে। দলে ‌যা হচ্ছে তার জন্য খারাপ লাগছে।” তাঁর এই মন্তব্যের জেরে রাজনৈতিক মহলের তীব্র জল্পনা শুরু হয়েছে।আলাগিরির এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে বলা কথা  দলের মধ্যে নেতাদের মতানৈক্যের বিষয়ে পরোক্ষে ইঙ্গিত করছে বলেই রাজনৈতিক মহল মনে করছে। মঙ্গলবারের এই সভাকে ঘিরে স্বাভাবিক ভাবেই নানা প্রশ্ন তৈরী হচ্ছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

অবশ্য দলের এক প্রবীণ নেতা এই প্রসঙ্গে বললেন, এই বৈঠকে এম করুণানিধির মৃত্যুর ঘটনায় শোক জ্ঞাপন করা ছাড়াও ঠিক হবে কবে দলের সাধারণ সভার বৈঠক বসবে। আর দলের সাধারণ সভার বৈঠকেই স্থির হবে দলের কা‌র্যকরী সভাপতি স্ট্যালিনকে কবে দলের সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করা হবে। উল্লেখ্য একদা দলের স্থপতি ও রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী আন্নাদুরাইয়ের মৃত্যুর পরও একইভাবে দলের বৈঠক বসেছিল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এম করুণানিধির দুই পুত্র স্ট্যালিন এবং আলাগিরি মধ্যেকার অর্ন্তদ্বন্দ্ব বহুদিনের। পিতা এম করুণানিধি ২০১৪ সালে আলাগিরি’কে  দল থেকে বহিষ্কার করেন। আলাগিরি বরাবরই বিদ্রোহী প্রকৃতির। দলবিরোধী কাজ ও ভাইয়ের বিরুদ্ধে বেফাঁস মন্তব্যের কারণেই ডিএমকে প্রধান তাঁকে দল থেকে বহিঃস্কার করেন। এবং এই সময়েই দলের কা‌র্যকরী সভাপতি হিসেবে স্ট্যালিনকে নির্বাচন করা হয়। আর তখনই স্থির হয়ে যায় দলের পরবর্তী কর্ণধার হচ্ছেন স্ট্যালিনই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!