এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিজেপির সঙ্গে হাত মেলালেন প্রাক্তন তৃণমূল শীর্ষনেতা

বিজেপির সঙ্গে হাত মেলালেন প্রাক্তন তৃণমূল শীর্ষনেতা

বিধানসভা নির্বাচন জট এগিয়ে আসছে ততই জমজমাট হচ্ছে ত্রিপুরার রাজ্য-রাজনীতি। অবশেষে বিজেপির সঙ্গে হাত মেলালেন ত্রিপুরার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যের অন্যতম শীর্ষ তৃণমূল নেতা সমীররঞ্জন বর্মন। সমীরবাবু কংগ্রেসের টিকিটে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী হন, কিন্তু পরবর্তীকালে তাঁর ছেলে সুদীপ রায়বর্মন আরো পাঁচ বিধায়ককে নিয়ে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলে তিনিও তাঁদের সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। তাঁকে সেইসময় ত্রিপুরাতে তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম শীর্ষনেতা মণ হত। এরপরে আবার বদলায় ত্রিপুরার রাজনৈতিক সমীকরণ, সুদীপবাবুরা সদলবলে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। সূত্রের খবর, সেইসময় সমীরবাবুও বিজেপিতে যোগ দিতে চেয়েছিলেন, কিন্তু বিজেপি সেই সময় তাঁকে ব্রাত্য করে রাখে।

এরপর অনোন্যপায় সমীরবাবু নিজের কেন্দ্র বিশালগড় থেকে নির্দল প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন জমা দেন। বিশালগড় বিধানসভা তাঁর ‘গড়’ হিসাবেই মানা হয়, এখান থেকেই তিনি আগে বিধায়ক হয়েছেন। ফলে এই কেন্দ্রে তিনি দাঁড়িয়ে যাওয়ায় ভোট কাটাকাটিতে বামপ্রার্থীর জয় সহজ হয়ে যেত। আর তাই, আসরে নামে বিজেপি, তাঁকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে অনুরোধ করা হয় বিজেপির তরফে। সমীরবাবুর নিজের কথায়, ত্রিপুরা বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেব ও বিজেপির তরফে নির্বাচনের ভারপ্রাপ্ত অসমের অর্থমন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা ফোনে মনোনয়ন তুলে নেওয়ার অনুরোধ করেন। বৃহত্তর স্বার্থের কথা ভেবেই আমি তাঁদের ডাকে সাড়া দিয়েছি। এমনকি ত্রিপুরা বিজেপির সভাপতি বিপ্লব দেবও সমীরবাবুর বক্তব্যকে সমর্থন করে জানিয়েছেন, আজ সকালে আমি ওঁকে ফোনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের অনুরোধ করেছিলাম। বলি, আপনি ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন। আপনি দেখুন যাতে সিপিএম-বিরোধী ভোট ভাগ না হয়। উনি তখনই কথা দেন। যদিও কংগ্রেস নেতাদের বক্তব্য, বিজেপির সঙ্গে ‘ডিল’ করেই এইভাবে মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিলেন সমীরবাবু। এরফলে আগামী লোকসভায় বা রাজ্যসভায় তিনি বিজেপির মনোনয়ন পাবেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!