এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্যে বাড়ছে অসহিষ্ণুতা – হাল ধরতে চান প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, লোকসভার আগেই কি সরকার ভাঙবে?

রাজ্যে বাড়ছে অসহিষ্ণুতা – হাল ধরতে চান প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, লোকসভার আগেই কি সরকার ভাঙবে?

রাজ্যের মানুষের আশীর্বাদকে সম্বল করে আবারও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পদে নির্বাচিত হবেন তিনি। এদিন রাজ্যের হাসানের বন্যা দুর্গত স্থান পরিদর্শনে গিয়ে এমন কথাই জানালেন কর্ণাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া। এমনকি তিনি দাবি করলেন সম্প্রতি রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের পরবর্তীতে শুধুমাত্র বিরোধীদের চক্রান্তের কারণেই  তিনি দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী পদে স্থায়ীভাবে অধিষ্ঠান করার ক্ষেত্রে বাধা পেয়েছেন।

প্রসঙ্গত কর্ণাটকে বিধানসভা নির্বাচনের পরবর্তীতে দেখা যায় একক বৃহত্তম সংখ্যা গরিষ্ঠ দল হিসেবে বিজেপি সরকার গঠন করতে গেলেও আস্থা ভোটে চুড়ান্তভাবে বিপর্যস্ত হয় বিজেপি । মাত্র একদিনের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়া’কে জনসমর্থন না পেয়ে পদত্যাগ করতে হয়। তখন রাজ্যে ক্ষমতায় বসে কংগ্রেস-জনতাদল সরকার। পূর্ব নির্ধারিত চুক্তি অনুসারে এই জোটের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে জেডিএস দলের নেতা এইচডি কুমারস্বামী মনোনীত হন। এদিকে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী  মন্তব্যের জেরে রাজ্য রাজনীতিতে আলোড়ন ছড়িয়ে পড়ে।

এই প্রসঙ্গে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী আরভি দেশপান্ডে জানালেন, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য মানে এমন নয় যে তিনি রাজ্যের বর্তমান সরকারকে ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। যেহেতু তিনি  সিদ্ধারামাইয়াকে গত ৩০ বছর ধরে চেনেন তাই তিনি কার্যত হলফ করেই বলতে পারেন যে সিদ্ধারামাইয়া পিছনের দরজার রাজনীতি পছন্দ করেন না। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী আরোও বললেন তারা মনে করেছিলেন সিদ্ধারামাইয়াই এবারেও মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব ভার সামলাবেন। কিন্তু দূর্ভাগ্যক্রমে তাদের দল নির্বাচনে হেরে যায়। তবে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর সাম্প্রতিকতম মন্তব্যে তিনি ব্যক্তিগতভাবে কোনো ত্রুটি খুঁজে পাচ্ছেন না।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রব্লেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!