এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নির্বাচন কমিশনের অধীনে থাকলেও জেলাশাসক ও আধিকারিকদের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা রাজ্যের

নির্বাচন কমিশনের অধীনে থাকলেও জেলাশাসক ও আধিকারিকদের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা রাজ্যের

পঞ্চায়েত নির্বাচনের কারনে রাজ্যের গ্রামীন এলাকায় কাজকর্ম বন্ধ থাকায় বিভিন্ন প্রশাসনিক বৈঠকে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইমত রাজ্যে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন হলেই সমস্ত জেলার গ্রামাঞ্চলগুলিতে আরও বেশি করে উন্নয়নের কাজে জোর দিতে সরকারের তরফে বিভিন্ন জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের একটি নির্দেশনামাও পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু ফের এই কাজ বিঘ্ন হওয়ার আশঙ্কা দেখছে সরকার। কেননা, পুজোর পরেই লোকসভা ভোট। আর যার জেরে এখন থেকেই ভোটার তালিকা তৈরির কাজে পুরোকদমে ব্যাস্ত হয়ে পড়েছেন বিভিন্ন জেলার জেলাশাসক থেকে শুরু করে প্রশাসনিক আধিকারিকেরা। বর্তমানে তাঁরা প্রত্যেকেই রয়েছেন নির্বাচন কমিশনের অধীনে। কিন্তু এই কাজের জন্য যাতে রাজ্যের গ্রামাঞ্চলগুলির উন্নয়নে কোনো ব্যাঘাত না ঘটে সেই কারনে আগাম রাজ্যের সমস্ত জেলার জেলাশাসকদের একটি চিঠি দিলেন রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তরের সচিব অজিত বর্ধন। প্র

সঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী 2019 এর 4 জানুয়ারী পর্যন্ত এই ভোটার তালিকার কাজ সম্পূর্ন হবে। আর তারপরেই বেজে যাবে লোকসভা ভোটের দামামা। যেখানে ফের বন্ধ থাকবে রাজ্যের উন্নয়নের কাজ। আর তাই এই লোকসভার ঘন্টা বাজার আগেই গ্রামীন এলাকার কাজে গতি আনতে চায় রাজ্য। সূত্রের খবর, সম্প্রতি রাজ্যের পঞ্চায়েত সচিব রাজ্যের 22 টি জেলাশাসককে একটি চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন যে, “ভোটের কারনে পুজোর পর উন্নয়নের কাজ থমকে যেতে পারে। তাই এখন থেকেই জেলাশাসকদের উদ্যমী হয়ে এই কাজ করতে হবে।” পাশাপাশি এই কাজে কোথাও যদি সরকারের প্রয়োজন পড়ে তাহলে রাজ্য সরকারও সবরকম সহযোগীতা করতে প্রস্তুত বলে চিঠিতে জানিয়েছেন রাজ্যের পঞ্চায়েত সচিব।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে এই কাজে যাতে জেলাশাসকরা যাতে কোনো ঢিলেমি না করে তারজন্য জেলাশাসকদের কিছুটা উৎসাহও প্রদান করেছেন তিনি। বিগত দিনে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তরের অধীনে থাকা 11 টি প্রকল্পকে কেন্দ্রের তরফে যেভাবে সেরার সেরা সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে তার প্রশংসা করে জেলাশাসকদেরই সেই কৃতিত্বের ভাগিদার বলে মন্তব্য করেছেন পঞ্চায়েত সচিব অজয় বর্ধন। আর তাই ভবিষ্যতেও যাতে সেই জেলাশাসকদের জন্যই এই কাজে আবার বাংলা ভারতসভায় শ্রেষ্ট আসন লাভ করে তার জন্য এখন থেকেই কিছুটা অগ্রনী ভূমিকা পালনের জন্য জেলাশাসকদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সব মিলিয়ে লোকসভা ভোটের দামামা বাজার আগেই রাজ্যের গ্রামাঞ্চলের সমস্ত উন্নয়নের কাজ সম্পন্ন করতে তৎপর রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!