এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ভোটে ভোটারের প্রাণ যাবার পর কি আরও কড়া হবে নির্বাচন কমিশন? বাড়ছে বিরোধীদের ক্ষোভ

ভোটে ভোটারের প্রাণ যাবার পর কি আরও কড়া হবে নির্বাচন কমিশন? বাড়ছে বিরোধীদের ক্ষোভ

লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজবার বহু আগে থেকেই এবারের নির্বাচনে বাংলায় যাতে কোনোরুপ অশান্তি না হয়, তার জন্য প্রতি বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখবার আর্জি জানিয়ে এসেছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো। আর সেইমতো ভোট শুরুর পরে প্রথম দফার ভোট সম্পন্ন হতে না হতেই বিরোধীদের পক্ষ থেকে বিভিন্ন বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকায় পরবর্তী দফাগুলোতে যাতে সব বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখা যায় তার জন্য দাবি জানানো হয়েছিল।

আর বিরোধীদের এই আর্জিকে মান্যতা দিয়ে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দফায় কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্বাচন করলেও এবার তৃতীয় দফার ভোটের শেষে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক সাধারণ ভোটারের মৃত্যুকে ঘিরে কমিশনের ভূমিকা নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলতে শুরু করল বিরোধীরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, তৃতীয় দফার ভোটে মুর্শিদাবাদ ভগবানগোলা শাসক বনাম বিরোধী দলের সংঘর্ষে প্রাণ হারান এক সাধারণ ভোটার। আর এখানেই বিরোধীদের তরফে কমিশনের উদ্দেশ্যে নানা প্রশ্নবাণ ছুড়ে দেওয়া হয়েছে। বিরোধীদের অভিযোগ, বারে বারে কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে এবং কঠোর নিরাপত্তা বলয়ের মধ্য দিয়ে নির্বাচন করার কথা বলা হলেও তৃতীয় দফার নির্বাচনে এক সাধারণ মানুষের যেভাবে প্রাণ ঝরল তার পেছনে দায় তো রয়েইছে।

আর তৃতীয় দফার ভোটে এক সাধারণ ভোটারের মৃত্যুর পর এবার পরবর্তী দফাগুলোতে যাতে এরকম কোনো ঘটনা না ঘটে তার জন্য বাড়তি পদক্ষেপ নিতে পারে নির্বাচন কমিশন বলে বিভিন্ন মহল সূত্রে খবর পাওয়া যেতে শুরু করেছে।

বিশেষজ্ঞদের অনেকেই বলছেন, বিরোধীরা যাতে আর কোনোরূপ অভিযোগ তুলতে না পারে তার জন্য চতুর্থ দফায় আরও বেশি করে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়োগ করতে পারে নির্বাচন কমিশন।সব মিলিয়ে এবার তৃতীয় দফার ভোটে প্রথম বাংলায় রক্তঝরা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের ভূমিকায় প্রশ্ন তুলতে শুরু করল বিরোধীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!