এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > জল্পনা বাড়িয়ে লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে নিয়ে গেল নির্বাচন কমিশন

জল্পনা বাড়িয়ে লোকসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি তুঙ্গে নিয়ে গেল নির্বাচন কমিশন

আগামী লোকসভা নির্বাচন নিয়ে জোরদার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে দেশের রাজনৈতিক দলগুলো। গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠার এই লড়াই-এ কে কাকে ছাপিয়ে উপরে উঠবে তা নিয়ে পরিকল্পনার শেষ নেই দেশের শাসক দল সহ বিরোধীশিবিরগুলোর । তবে এই ভোট প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে চালানোর দায়িত্ব যাদের উপর বর্তায় সেই নির্বাচন কমিশনও কিন্তু রাতের ঘুম উড়িয়ে ভোট প্রস্ততি পর্বে লেগে গেছে। কারণ হাতে গোনা কয়েকদিনই মাত্র বাকি লোকসভা নির্বাচনের। দেশের প্রধানমন্ত্রী বাছাই করার মহানযজ্ঞে কাজ তো নেহাত কম নেই! ইতিমধ্যেই তাঁরা কিছু বিষয়ে নজরদারি শুরু করে দিয়েছে। ভোট বুথগুলোর পরিকাঠামোর অবস্থা, ভোটার সংখ্যা সামলানোর জন্য বুথ কতগুলো, তাছাড়া মৃত এবং রিপিটের ভোটার সংখ্যা কত ,এই সমস্ত তথ্য হিসেব সহ চাই তাঁদের।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা নির্বাচন দফতর সূত্রে জানা গেল, নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসাবে গত ১১ জুন থেকেই নাকি বাড়ি বাড়ি গিয়ে সার্ভের কাজ শুরু করে দিয়েছে তাঁরা। এই কর্মসূচিতে বুথ লেবেল অফিসাররা( BLO) বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করছেন। একই ব্যক্তির একাধিক ভোটার তালিকায় নাম আছে কিনা তাও খুঁটিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া মৃত ব্যক্তিদের নাম ভোটার তালিকা থেকে বাতিল করার কাজটাও সারা হচ্ছে। জানা যাচ্ছে এই কর্মসূচি চলবে ৩০ জুন অব্দি। একই ব্যক্তির দুই জায়গার ভোটার তালিকায় নাম থাকলে তাঁদের চিহ্নিত করে একদিন হেয়ারিং এর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যাতে একটা মানুষ একটা জায়গাতেই উপস্থিত থাকতে পারেন। এরই সঙ্গে ১ লা জানুয়ারী,২০১৯ সালের হিসাবে যাঁরা ১৮ তে পা রাখতে চলেছেন সেসব নতুন ভোটারদেরও ভোটার তালিকায় নাম তোলার কাজও করা হচ্ছে।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আরো জানা যাচ্ছে যে ১১ জুন – ৩০ জুনের মধ্যে দুটি বিশেষ ক্যাম্পের আয়োজন করা হবে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে। ইতিমধ্যে ১৭ জুন একটি ক্যাম্প আয়োজিত হয়ে গেছে। আর ২৯ জুন আরেকটি ক্যাম্প আয়োজনের কথা চলছে। বিশেষ ক্যাম্পগুলিতে বিএলও অর্থাৎ বুথ লেবেল অফিসারদের সঙ্গে বৈঠক হচ্ছে বিএলএ অর্থাৎ বুথ লেবেল এজেন্টদের। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে যেসব বুথে ১৩০০ র উপরে ভোটার হয়ে যাচ্ছে, সেখানে সংখ্যা বিভাজন করে দুটি বুথকে ভোটার সামলানো দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। এবং এটাও খেয়াল রাখতে বলা হচ্ছে যে ভোটারদের বাড়ি থেকে বুথ যেন দুই কিমির বেশি না হয়। এছাড়াও ইভিএম এবং ভিভিপ্যাড নিয়ে ব্যস্ততাও রয়েছে নির্বাচন আধিকারিকদের মধ্যে। এর পাশাপাশি জোর কদমে চলছে ভোটকর্মী এবং মাইক্রো অবজারভারদের নামের তালিকা প্রস্তুতির কাজ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!