এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দেশ ছেড়ে পালানো মেহুল চোকসিকে মোক্ষম ধাক্কা ইডির – পুরোটা জানলে চমকে যাবেন!

দেশ ছেড়ে পালানো মেহুল চোকসিকে মোক্ষম ধাক্কা ইডির – পুরোটা জানলে চমকে যাবেন!

ব্যাঙ্কের ঋণ নিয়ে একের পর এক ব্যবসায়ী তা শোধ না করেই বিদেশে পালিয়ে যাচ্ছিলেন – আর তা নিয়ে তীব্র আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যদিও বিজেপির তরফে বারবার দাবি করা হয়েছে – এইসব ব্যবসায়ীদের নিয়ম না মেনে ব্যাঙ্ক থেকে বিপুল পরিমান টাকা পাইয়ে দেওয়া হয়েছিল কংগ্রেসের আমলেই! কিন্তু, বিরোধীদের দাবি – কিন্তু এতদিন ঋণখেলাপি হয়েও দেশেই ছিলেন। নরেন্দ্র মোদির জামানাতেই এঁরা বিদেশে পালতে পারছেন।

যদিও, বিজেপির তরফে বারেবারেই জানানো হয়েছিল এই ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে কঠোরতম ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর সেই পথ ধরেই প্রথমে বিজয় মালিয়াকে দেশে প্রত্যার্পনের ব্যবস্থা করার পরে – কেন্দ্রীয় সরকারের নজর পড়েছিল পিএনবি-র ঋণখেলাপকারী মেহুল চোকসির দিকে। যদিও, মেহুল চোকসি জানিয়েছিলেন শারীরিক অসুস্থতার কারণে দীর্ঘ বিমানযাত্রা করে তিনি দেশে ফিরতে পারবেন না। আর তাই, এবার ঘুরপথে মেহুল চোকসিকে চূড়ান্ত ধাক্কা দেওয়ার পরিকল্পনায় কেন্দ্র।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, থাইল্যান্ডের অ্যাবিক্রেস্ট নামে একটি কোম্পানি বাজেয়াপ্ত করেছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট বা ইডি। আদতে ওই সংস্থাটি মেহুল চোকসির গীতাঞ্জলির অধীনস্থ এবং বাজেয়াপ্ত সম্পত্তির পরিমাণ ১৩ কোটি টাকারও বেশি। অর্থ তছরূপের মামলায় চোকসির গীতাঞ্জলি কোম্পানির সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে শুরু করেছে ইডি, ফলে দেশে বিদেশে আরও এরকম অনেক সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হবে বলেই জানা যাচ্ছে। এখনও পর্যন্ত মেহুল চোকসির সংস্থার প্রায় ৫৩৭ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, পিএনবি ব্যাঙ্কের ঋণ খেলাপ করে বিদেশে গা ঢাকা দিয়েছেন নীরব মোদী ও তাঁর মামা মেহুল চোকসি। ফলে, প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং আইনে মেহুল চোকসিকে পলাতক আর্থিক অপরাধী হিসেবে ঘোষণা করার জন্য বিশেষ আদালতে আবেদন করেছে ইডি। এমনকি ইতিমধ্যেই, মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে রেডকর্ণার নোটিস জারি করেছে ইন্টারপোল। পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের কাছ থেকে হিরে ব্যবসায়ী মেহুল চোকসি ও নীরব মোদীর ঋণ সুদে আসলে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২,৪০০ কোটি টাকা – যদিও মেহুল চোকসির অভিযোগ ইচ্ছে করে তাঁর সম্পত্তির মূল্য কমাচ্ছে ইডি। সবমিলিয়ে ইডির হাত ধরে ক্রমশ মেহুল চোকসির অস্বস্তি বেড়েই যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!