এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে সাংসদ ঘনিষ্ঠ হেভিওয়েট নেতার, দিলীপ তুলে দিলেন দলীয় পতাকা

এবার তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে সাংসদ ঘনিষ্ঠ হেভিওয়েট নেতার, দিলীপ তুলে দিলেন দলীয় পতাকা

2019 এর লোকসভা ভোটের পর থেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার প্রবণতা বহুল পরিমাণে বৃদ্ধি পায়। বিশেষ করে শাসক দল থেকে একের পর এক সাংসদ, বিধায়ক, মন্ত্রী, সদস্য বিজেপিতে যোগ দেন। ইতিমধ্যে বিজেপি থেকেও সংগঠন বাড়ানোর উদ্দেশ্যে প্রচার করা হয় বিজেপির দরজা সবার জন্যই খোলা। এবার বিজেপির সেই আহবানে সাড়া দিয়ে দলে যোগদান করতে চলেছেন একদা তৃণমূল সাংসদ ঘনিষ্ঠ হেভিওয়েট নেতা শ্রীধর দাস। শ্রীধর দাসের যোগদানের ফলে বিজেপির এক অংশ যেমন সংগঠন মজবুত হওয়ার দাবি জানিয়েছে, সেরকম বিজেপির অন্য অংশে উঠেছে প্রশ্ন।

স্থানীয়দের দাবি , শ্রীধর দাস একসময় পরিচিত ছিলেন এলাকার সমাজবিরোধী রূপে। কিন্তু পরবর্তীকালে তিনি রাজনৈতিক দলে যোগদান করেন। তিনি বাম রাজনীতির অলিন্দে বাম জমানায় যথেষ্ট কার্যকরী ছিলেন। পরিবর্তনের জমানায় তিনি লাল ঝান্ডা ছেড়ে ঘাসফুল শিবিরে চলে আসেন। আর এবার তিনি সোজা পদ্ম শিবিরে।

সম্প্রতি রাসবিহারীর ‘আদি দক্ষিণ কলকাতা বারোয়ারি সমিতির দুর্গাপুজো’ কে দখল করা নিয়ে প্রচারে আসেন শ্রীধর দাস। সূত্রের খবর, শ্রীধর দাসের সহায়তায় ওই পুজোটি দখল করতে চেষ্টা করেছিল বিজেপি। কিন্তু পুজো কমিটির অফিসে সায়ন্তন বসু যাওয়ার পর পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে গ্রেপ্তার হন শ্রীধর দাস।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এই শ্রীধর দাসই এবার বিজেপিতে যোগ দিলেন। তাঁর হাতে আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় পতাকা তুলে দেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষের দাবি, শ্রীধর দাস বিজেপিতে যোগদান করায় সংগঠন মজবুত হবে। অন্যদিকে শ্রীধর দাস অভিযোগ করেছেন, শাসক দলের পক্ষ থেকে তাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। যে কারণে তিনি এলাকায় ঢুকতে পারছেননা।

এই মুহূর্তে বিজেপি দলে শ্রীধর দাস এর আগমন দলীয় ভাবমূর্তিকে কতটা স্বচ্ছ রাখবে, সে নিয়ে দলের অন্দরেই প্রশ্ন উঠেছে। তবে বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, দক্ষিণ কলকাতায় শাসক দল তৃণমূলকে চাপে ফেলতে শ্রীধর দাসের প্রয়োজন হবে। অন্যদিকে ববি হাকিমকেও শ্রীধর দাস চ্যালেঞ্জ দিতে পারেন বলে নিশ্চিত বিজেপি নেতৃত্ব।

শ্রীধর দাসের আগমন হেতু বিজেপিতে দলীয় স্তরে গুঞ্জন শুরু হয়েছে। সূত্রের দাবি, বিজেপির একাংশ শ্রীধর দাসকে দলে নেওয়ার পক্ষপাতী নন। কারণ, শ্রীধর দাস একসময়ের অর্থাৎ বাম আমলে এলাকায় যথেষ্ট ত্রাস সৃষ্টি করেছিলেন। তোলাবাজি সহ একাধিক মামলা আছে তাঁর নামে। স্থানীয়দের দাবি, ওই সময় শ্রীধর দাস বাম নেতাদের ছত্রছায়ায় ছিলেন। অন্যদিকে, বিজেপির অন্য অংশ দাবি করেছে, একসময় শ্রীধর দাস যা ছিলেন, তা আজকে নেই। তাই দলে নিতেও তাঁকে কোনো বাধা নেই। আপাতত পরিস্থিতি যেদিকে যাবে সেদিকে নজর রাখবে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!