এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > এবার এই নির্বাচনেও তৃণমূলের জয়জয়কার, বিজেপির আভিযোগ ‘ছাপ্পা ভোট’

এবার এই নির্বাচনেও তৃণমূলের জয়জয়কার, বিজেপির আভিযোগ ‘ছাপ্পা ভোট’

Priyo Bandhu Media


সামনেই কয়েক মাসের মধ্যেই রাজ্যজুড়ে শুরু হতে চলেছে পুরসভার ভোট। আর তারপরেই 2021 সালে আসছে গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যের মসনদ দখল করার লড়াই হিসেবে বিধানসভা নির্বাচন। তবে তার আগে তৃণমূল অন্দরে খুশির হাওয়া কারণ এবার হাই মাদ্রাসায় নির্বাচনে সব কয়টি আসনে জয়লাভ করেছে তৃণমূল। লোকসভা ভোটের পরে পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল বেশ কোণঠাসা হয়ে পড়ে, কিন্তু পরবর্তীতে এই চাপ তৃণমূল কাটিয়ে ওঠে এবং আপাতত মাদ্রাসা ভোটের জয় তাই প্রমাণ করছে। অন্যদিকে, বিজেপি এই জয়ের পেছনে তৃণমূলের ছাপ্পা ভোট ছাড়া অন্য কোনো কারণ দেখছে না।

এদিন হাই মাদ্রাসা ভোটের রেজাল্ট বেরিয়েছে বাঁকুড়ায় এবং রেজাল্ট বেরোনোর পরেই দেখা যাচ্ছে তৃণমূল ছটি আসনের মধ্যে ছটিতেই জয় লাভ করেছে। অন্যদিকে, বিজেপি এই ভোটে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে যে তৃণমূল শিবির অন্যায় ভাবে অশান্তির আবহ তৈরি করে এই ভোটে লড়েছে আর তার জন্যই তাঁদের ভাগ্যে নিরঙ্কুশ জয় এসেছে। প্রসঙ্গত, গত 16 জানুয়ারি চান্দাই হাই মাদ্রাসার নির্বাচন হয় এবং এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে চান্দাই এলাকা।

চান্দাই মাদ্রাসা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এলাকায় রীতিমতো উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দুই দলের লড়াইয়ে। এমনকি বিজেপি অভিযোগ করে, তাঁদের পার্টি অফিস জ্বালিয়ে দিয়েছে তৃণমূল। যদিও তৃণমূল এই অভিযোগ অস্বীকার করে। অন্যদিকে, দুই রাজনৈতিক শিবিরের মধ্যে ঘনঘন সংঘর্ষ চলতে থাকে মাদ্রাসা নির্বাচনের আগে। এই সংঘর্ষের ফলে দু’দল মিলিয়ে কমবেশি চারজন গুরুতর আহত হয় একটি মোটর বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় বলে সূত্রের খবর। এই সংঘর্ষজনিত কারণে গোটা এলাকা জুড়ে প্রশাসন 144 ধারা জারি করে এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হয়। এবং তারপর এই ছটি আসনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়।

অন্যদিকে, ভোট চলাকালীন বিজেপি অভিযোগ করে, তৃণমূল রীতিমতন ছাপ্পা ভোট চালাচ্ছে। শুধু বিরোধী দলই নয়, সে সময় দায়িত্বে থাকা পোলিং এজেন্ট আসাউদ্দিন মল্লিক এ বিষয়ে রীতিমতন অভিযোগ তোলেন শাসকদলের বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ তৃণমূল ক্রমাগত ছাপ্পা ভোট চালিয়ে যাচ্ছে বুথে বুথে এবং এই ছাপ্পা ভোটে পূর্ণ মদত দিচ্ছে প্রশাসন। এই অভিযোগ সামনে আসতেই রাজনৈতিক শিবিরে প্রবল সমালোচনা শুরু হয়। এদিকে, বিজেপি চাঞ্চল্যকর অভিযোগ আনে শাসক দল তৃণমূলের প্রতি।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

বিজেপি আরও জানায়, বেশ কিছুদিন আগে বিজেপির পার্টি অফিসে আগুন লাগিয়ে দেয় তৃণমূ্‌ল, যাতে মাদ্রাসায় হওয়া ভোট বানচাল হয়ে যায়। অন্যদিকে, বড়জোড়া এলাকার প্রথমসারির বিজেপি নেতা সুজিত অগস্থি জানিয়েছেন, মাদ্রাসার নির্বাচনে জেতার পেছনে শুধুমাত্র তৃণমূলের ছাপ্পা ভোট কাজ করলেও, যা হয়েছে তা প্রশাসনের ইচ্ছায়। এমনকি এলাকায় প্রশাসন 144 ধারা জারি করে ইচ্ছাকৃতভাবে যাতে বিরোধী দল বিজেপি কোনভাবেই অকুস্থানে না যেতে পারে।

এদিকে, বিজেপির সমস্ত অভিযোগ এককথায় নাকচ করে দিয়েছে তৃণমূল শিবির। এলাকার বড়জোড়া ব্লক সভাপতি অলোক মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, 4-5 দিন আগে বিজেপির দলের লোকেয়া নিজেরা ইচ্ছাকৃতভাবে নিজেদের পার্টি অফিস জ্বালিয়ে দেয় এবং পরবর্তীতে তৃণমূলের ওপর দোষারোপ করছে। তাঁর আরও দাবি, বিজেপি প্রচারে আসার জন্যই এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। তিনি বলেন, পুলিশি নিরাপত্তায় রীতিমতন সুষ্ঠুভাবে এলাকায় মাদ্রাসার ভোট হয়েছে। কোন রকম অশান্তির চিহ্নমাত্র কোন জায়গায় নেই।

রাজ্যের যুযুধান দুই শিবির হলো বিজেপি এবং তৃণমূল। এই দুই দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে এখন রাজ্যের নির্বাচনগুলিকে কেন্দ্র করে। লোকসভা নির্বাচনের পর তৃণমূল ঘুরে দাঁড়ায় গত বছর হওয়া উপনির্বাচনে। এবার আবার সামনে আসছে পুর নির্বাচন এবং তারপর বিধানসভা নির্বাচন। আর তারই মধ্যে মাদ্রাসা নির্বাচনে ছটি আসনে জিতে তৃণমূল সামান্য হলেও কিছুটা এগিয়ে রইল বলে মনে করছে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞগণ। অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছে, এই মুহূর্তে বিজেপি সম্পূর্ণ মনোনিবেশ করছে সামনের পুর নির্বাচন এবং পরবর্তীতে বিধানসভা নির্বাচনের দিকে। তাই এই দুটো নির্বাচন জিততে রাজনৈতিক শিবিরগুলি কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে রাজনৈতিক ময়দানে। আপাতত পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!