এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > পিবি এক্সক্লুসিভ – পুলিশ বলছে আত্মহত্যা, কি বলছে দুলাল কুমারের পরিবার?

পিবি এক্সক্লুসিভ – পুলিশ বলছে আত্মহত্যা, কি বলছে দুলাল কুমারের পরিবার?

গতকাল সকালে পুরুলিয়ার এক হাইটেনশন টাওয়ার থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় আবিষ্কৃত হয় বিজেপি নেতা দুলাল কুমারের মৃতদেহ। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের আগেই তৎকালীন পুলিশ সুপার জয় বিশ্বাস জানিয়ে দেন আত্মহত্যা করেছেন দুলাল কুমার। ফলে তীব্র বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অনেক কষ্টে স্থানীয় বাসিন্দাদের শান্ত করে দুপুর দুটো নাগাদ দুলাল কুমারের মৃতদেহ নামিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়। ইতিমধ্যেই চাপের মুখে এসপি জয় বিশ্বাসকে সরিয়ে নিয়ে আসা হয় নতুন এসপি আকাশ আকাশ মেঘারিয়াকে। কিন্তু তিনিও এদিন সাংবাদিক বৈঠক ডেকে জানিয়ে দেন দুলাল কুমারের ময়না তদন্তের যে রিপোর্ট তাঁর হাতে এসেছে তা দেখে মনে হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। গলায় ফাঁস দিয়ে ঝোলার ফলেই তাঁর শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মৃত্যু। গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যায় যে লক্ষণগুলো দেখা যায়, তার প্রত্যেকটাই মিলেছে দুলালের দেহে। এর মধ্যে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই।

তিনি আরো জানান, দুলাল কুমারের ময়নাতদন্তের জন্য ৫ জন চিকিৎসককে নিয়ে বোর্ড গঠন করা হয়েছিল। বিতর্ক এড়াতে পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে গোটা ময়নাতদন্তের প্রক্রিয়া ভিডিওগ্রাফি করে রাখা হয়েছে। পুলিশের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের প্রতিনিধি মৃত দুলাল কুমারের পরিবারের সাথে দেখা করেন। দুলালবাবুর পরিবারের স্পষ্ট বক্তব্য, এই ঘটনা কিছুতেই আত্মহত্যা হতে পারে না। বাড়িতে বা এলাকায় কারোর সাথে কোনো অশান্তি ছিল না তাঁর। বাড়িতে ভাত বাড়তে বলে তিনি প্রতিদিনের মত পুকুরে হাত-পা ধুতে যান। প্রসঙ্গত, সেই পুকুরের পাশেই তাঁর বাইক পাওয়া যায়, যখন আবিষ্কৃত হয় তখনো সেই বাইক থেকে চাবি ঝুলছিল। তা ছাড়াও দুলালবাবুর মৃতদেহ যেখান থেকে আবিষ্কৃত হয়েছে তা ওই পুকুর থেকে ১ কিলোমিটারের কাছাকাছি, তাই পরিবারের দাবি আত্মহত্যা করা জন্য এতদূরে কেন হেঁটে যাবেন কেউ? অন্যদিকে, দুলালবাবুর বৌদির দাবি, এই ঘটনার পর স্থানীয় তৃণমূল নেতারা সবই বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন, যদি তাঁরা দোষীই না হবেন তাহলে তাঁরা বাড়ি ছাড়া কেন? সঙ্গে তাঁর দাবি, তৃণমূলের লোকেরাই তাঁর দেওরকে মেরে ফেলেছে। কি বলেছে দুলালবাবুর পরিবার দেখে নিন ভিডিওতে –

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!