এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দেখা নেই সিবিআইয়ের- নতুন করে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্কুলে তালা ঝুলিয়ে প্রতিবাদ ইসলামপুর কাণ্ডে নিহতদের পরিবারের

দেখা নেই সিবিআইয়ের- নতুন করে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্কুলে তালা ঝুলিয়ে প্রতিবাদ ইসলামপুর কাণ্ডে নিহতদের পরিবারের

গত 20 সেপ্টেম্বর শিক্ষক নিয়োগকে কেন্দ্র করে কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দারিভিট উচ্চ বিদ্যালয়। পড়ুয়া বনাম পুলিশের সংঘর্ষে শেষ পর্যন্ত প্রাণ হারাতে হয়েছিল দুই নিরীহ ছাত্র তাপস বর্মন এবং রাজেশ সরকারকে। আর এই দুই ছাত্রের মৃত্যুতে প্রবলভাবে শোকাহত হয়েছিল গোটা দারিভিট গ্রাম।

মৃত দুই ছাত্রের সুবিচারের জন্য প্রশাসনের কাছে একগুচ্ছ দাবি জানায় গ্রামবাসীরা। এমনকি দীর্ঘদিন এই দাড়িভিট স্কুল বন্ধ রেখে আন্দোলনও চালাতে থাকে তারা। পরবর্তীতে এই স্কুল খোলার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হলে গ্রামবাসীরাও সেই প্রশাসনকে কিছু শর্ত আরোপ করে।

যেখানে জেলবন্দি নিরীহ গ্রামবাসীদের নিঃশর্ত মুক্তি, এই দাড়িভিট কাণ্ডের সিবিআই তদন্ত এবং সেই দাড়িভিট স্কুলের কয়েকজন শিক্ষককে বহিষ্কার সহ দশ দফা দাবি তারা জেলা প্রশাসনকে জানায়। কিন্তু শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে দুজন শিক্ষককে সাসপেন্ড এবং শর্তসাপেক্ষে জেল বন্দীদের জামিন দেওয়া হলেও এখনও পর্যন্ত এই ঘটনায় গ্রামবাসীদের মূল দাবি সিবিআই তদন্ত শুরু করা হয়নি।

ফলে সেই সিবিআই তদন্তের দাবিতে এবার এই ইসলামপুর কাণ্ডে মৃত দুই ছাত্রের পরিবার সহ একাধিক গ্রামবাসী ফের গতকাল সেই স্কুলে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন। জানা যায়, এদিন সকাল সাড়ে নটায় এই দাড়িভিট স্কুলের গেটে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে এদিন এই স্কুলের পড়ুয়াদের প্রজেক্ট জমা দেওয়ার কথা থাকলেও স্কুলে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ায় তা নিয়ে প্রবল সমস্যার মুখে পড়েন অনেক পড়ুয়াই। তবে ছাত্র-ছাত্রীদের কথা ভেবে শেষ পর্যন্ত বেলা সাড়ে 11 টায় এই স্কুলের গেট খুলে দেওয়া হলেও পরবর্তীতে বিকেল চারটে নাগাদ স্কুল ছুটির পর ফের সেই গেটে তালা মেরে দেয় আন্দোলনকারীরা।

বিশেষ সূত্রে খবর, ফের কেন তারা এই আন্দোলনে শামিল হলেন? এদিন এই প্রসঙ্গে নিহত ছাত্র রাজেশ সরকারের বাবা নীলকমল সরকার বলেন, “ছেলের মৃত্যুর বিচার আমরা এখনও পাইনি। শর্তসাপেক্ষে স্কুল খুলতে দেওয়া হলেও এখনো সিবিআই তদন্তসহ অনেক দাবিই পূরণ করতে পারেনি প্রশাসন। আর তাই পূর্বঘোষণা মত প্রতিশ্রুতি পূরণ না হওয়ায় এদিন আমরা স্কুলের গেটে তালা লাগিয়ে গিয়েছিলাম। শনিবার থেকে আমরা ফের অবস্থানে বসব।”

একই কথা বলে এই রাজ্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন এই দারিভিট কান্ডে আরেক নিহত ছাত্র তাপস বর্মনের মা মঞ্জুদেবীও। অন্যদিকে এই স্কুলের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে গোটা ঘটনা তিনি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন বলে এদিন জানান সেই দাড়িভিট স্কুলের টিআইসি অনিল মন্ডল।

এদিকে এই ব্যাপারে সেই দাড়িভিট স্কুলের প্রশাসক তথা ইসলামপুরের মহকুমা শাসক মনীষ মিত্রকে একাধিক বার ফোন করা হলেও তার কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। সব মিলিয়ে ইসলামপুর কান্ডে নিহত ছাত্রের মৃত্যুতে সিবিআইয়ের তদন্ত শুরু না হওয়ায় ফের আন্দোলনের পথ বেছে নিল দাড়িভিটের মানুষেরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!