এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > উত্তর দিনাজপুরে পুলিশ ও তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা তান্ডব চালিয়ে বোর্ড গড়তে দিচ্ছে না, অভিযোগ কংগ্রেসের

উত্তর দিনাজপুরে পুলিশ ও তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা তান্ডব চালিয়ে বোর্ড গড়তে দিচ্ছে না, অভিযোগ কংগ্রেসের

বোর্ড গঠনকে ঘিরে জেলায় জেলায় সন্ত্রাস অব্যাহত। এবার শিরোনামে উত্তর দিনাজপুর জেলার একাধিক গ্রাম পঞ্চায়েত। সূত্রের খবর, জেলার চোপড়া ব্লকের লক্ষীপুর পঞ্চায়েতে গত সোমবার বোর্ড গঠনের আগেই রবিবার রাতে শুরু হয় ব্যাপক গন্ডগোল। জানা যায়, গত রবিবার রাতে এই অঞ্চলে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ বাঁধে স্থানীয় কংগ্রেস কর্মীদের। এরপর সেই রাতেই লক্ষীপুরের প্রবেশপথের রাস্তা কেটে ফেলার পাশাপাশি অপর একটি রাস্তায় গাছও ফেলে দেওয়া হয়। যার ফলে সম্পূর্ন পথ অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।

তবে রবিবার রাতে এই গন্ডগোল হলেও ফের সোমবার বোর্ড গঠনের সময় পঞ্চায়েত অফিসের সামনেই চলে ব্যাপক বোমাবাজি। এ প্রসঙ্গে চোপড়া ব্লকের কংগ্রেস সভাপতি অশোক রায় বলেন, “লক্ষীপুরে দলের নেতাকর্মীদের ওপর পুলিশ নির্ম অত্যাচার করেছে।” এদিন কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এর প্রতিবাদে লালবাজার থানা অবরোধও করা হয়।

এদিকে কংগ্রেসের এহেন অভিযোগ প্রসঙ্গে চোপড়ার তৃনমূল বিধায়ক হামিদুল রহমান বলেন, “পঞ্চায়েতে একটি আসনও না পেয়ে যেভাবে কংগ্রেস এলাকায় সন্ত্রাস করছে তাতে আমরা আর চুপ থাকব না।” অন্যদিকে এদিন এই বিক্ষোভ থামাতে বাধ্য হয়ে পুলিশ কাদানে গ্যাস ছোড়ে বলে জানান জেলা পুলিশ সুপার অনুপ জয়সওয়াল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে শুধু লক্ষীপুরই নয়, এই বোর্ড গঠনকে ঘিরে চোপড়ার পশ্চিমটোলা গ্রামেও দুস্কৃতীদের ছোড়া গুলিতে 10 জন গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন। পাশাপাশি ইসলামপুরের পন্ডিতপোঁতা 1 এবং 2 পঞ্চায়েতে তৃনমূলেরই দুটি গোষ্টীর সংঘর্ষে  এক তৃনমূল কর্মী মারাও যান। সব মিলিয়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ মহকুমার আটটিতে শাসকদল এবং তিনটিতে বিজেপি বোর্ড গড়লেও সেই বোর্ড গঠন ঘিরেই অশান্তি যেন কিছুতেই থামছে না জেলায়।

Top
error: Content is protected !!