এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > শুভেন্দুকে কড়া টক্করে মাত দিয়ে বিজেপিকে অ্যাডভ্যান্টেজ দিলেন দিলীপ? জল্পনা খড়্গপুর জুড়ে

শুভেন্দুকে কড়া টক্করে মাত দিয়ে বিজেপিকে অ্যাডভ্যান্টেজ দিলেন দিলীপ? জল্পনা খড়্গপুর জুড়ে

পুজোর পরেই খড়্গপুর বিধানসভা কেন্দ্রের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যাকে কেন্দ্র করে একদিকে যেমন বিজেপি দিলীপ ঘোষকে মুখ করে ফের এই কেন্দ্র নিজেদের দখলে ফিরিয়ে আনবার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে, ঠিক তেমনই তৃণমূল কংগ্রেস শুভেন্দু অধিকারীকে সামনে দাঁড় করিয়ে এবার এই আসন জিততে মরিয়া হয়ে উঠেছে। ফলে, দলীয় প্রার্থীদের জেতাতে এখন থেকেই দুই দলের দুই সৈনিক খড়্গপুরে থেকে জোর প্রচার করতে শুরু করে দিয়েছেন।

আর তাই এই নির্বাচনের আগে বাংলা ও বাঙালির সবথেকে প্রিয় উৎসব শারদোৎসবের সময়কে ছাড়তে নারাজ কোনো পক্ষই। দুর্গাপূজার সময় এই খড়্গপুরে দিলীপ ঘোষ নাকি শুভেন্দু অধিকারী – কে বেশি পুজো উদ্বোধন করবেন তা নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরেই জল্পনা চলছিল। বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করেছিলেন, যে দলের সৈনিক সবথেকে বেশি পুজো উদ্বোধন করার আবেদন পাবেন, খড়্গপুরে সেই দলই শেষ হাসি হাসবে। এতদিন এনিয়ে টানটান উত্তেজনা ছিল।

কিন্তু অবশেষে পঞ্চমীতে দেখা গেল পুজো উদ্বোধনে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীকে রীতিমতো টেক্কা দিলেন বিজেপির দিলীপ ঘোষ। জানা গেছে, মেদিনীপুরের বিজেপি সাংসদ তথা খড়্গপুরের ভূতপূর্ব বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষের কাছে পুজো উদ্বোধন করবার জন্য 60 টির বেশি আবেদন গিয়েছিল। অন্যদিকে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীর কাছে চল্লিশটির বেশি আবেদন জমা পড়েছিল। তবে সময়ের অভাবে দিলীপ ঘোষ পঞ্চমী এবং ষষ্ঠী মিলিয়ে এখানকার প্রায় ত্রিশটি পুজো উদ্বোধন করতে পারবেন বলে জানিয়েছেন।

অন্যদিকে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারী ঠাসা কর্মসূচির মধ্যে কাটছাঁট করে এখানকার সাত থেকে আটটি পুজোর উদ্বোধন করতে পারেন বলে জানা যাচ্ছে। পঞ্চমীর দিন যেখানে আটটি পুজো উদ্বোধন কথা রয়েছে দিলীপ ঘোষের, সেখানে সেই একই দিনে তিন থেকে চারটি পুজো উদ্বোধনের কথা রয়েছে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীর। ফলে, খড়্গপুরের বাতাসে এখন তীব্র গুঞ্জন শারোদৎসবের আবহে শুভেন্দু অধিকারীকে টেক্কা দিয়ে বেরিয়ে গেলেন দিলীপ ঘোষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীকে দিয়ে পুজো উদ্বোধন করানো সংযুক্তপল্লী সার্বজনীনের উদ্যোক্তা সুবীর সামন্ত সংবাদমাধ্যমকে বলেন, “আমরা পূজার উদ্বোধনে শুভেন্দুদাকে চেয়েছিলাম। উনি আমাদের আবেদনে সাড়া দিয়েছেন।” অন্যদিকে দিলীপ ঘোষকে দিয়ে পুজো উদ্বোধন করানো শরৎপল্লী সার্বজনীনের অন্যতম উদ্যোক্তা সঞ্জয় হাজরা বলেন, “আমরা আবেদন জানিয়েছিলাম। দিলীপদা আমাদের উদ্বোধনে আসছেন। আমরা খুব খুশি।”

আর ভোটের আগে তৃনমূলের শুভেন্দু অধিকারী বনাম বিজেপির দিলীপ ঘোষের পুজো উদ্বোধনের প্রতিযোগিতা নিয়ে এখন সরগরম খড়্গপুর। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা বিজেপি সভাপতি শমিত দাশ বলেন, “দুর্গাপূজা নিয়ে তৃণমূলের জমিদারি চালানোর দিন শেষ।” অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে বিজেপিকে পাল্টা খোঁচা দিয়ে জেলা তৃণমূলের সভাপতি অজিত মাইতি বলেন, “দুর্গাপুজোয় রাজনীতির রং দিতে চাইছে বিজেপি। আমরা মনে করি দুর্গাপুজো এমন একটা পূজা, যা দখল করা যায় না।”

অজিতবাবু আরও বলেন, “ওরা এরকম সংকীর্ণ রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি কেন নিয়ে এল, তা জানি না।” তবে পুজো উদ্বোধন নিয়ে তৃণমূল – বিজেপির মধ্যে তরজা যখন চরমে উঠেছে, ঠিক তখনই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনেকের কথা অনুযায়ী – অ্যাডভ্যান্টেজ বিজেপি! তাঁদের মতে, যেভাবে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা খড়্গপুরের ভূতপূর্ব বিজেপি বিধায়ক তথা মেদিনীপুরের বর্তমান বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ পুজো উদ্বোধনে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীর দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন – তাতেই ছবিটা স্পষ্ট।

এখনও পর্যন্ত খড়গপুর তথা মেদিনীপুরের মাটিতে পুজো থেকে রাজনীতি, সবকিছুতেই দীলিপবাবুর বিজেপি অনেকটাই অ্যাডভান্টেজ পেতে পারেন বলে মত বিশ্লেষকদের। তবে পুজোর সঙ্গে ভোটের অঙ্ক গুলিয়ে ফেলতে নারাজ সকলেই। তাই শেষ পর্যন্ত পুজোর উদ্বোধনের মত বিজেপি খড়্গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনে এগিয়ে থাকে, নাকি পুজোয় উদ্বোধনে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও শেষ পর্যন্ত ভোটের অঙ্কে বাজিমাত করে শুভেন্দু অধিকারীর তৃণমূল কংগ্রেস! শারদোৎসবের পর সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!