এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > মুখ্যমন্ত্রীকে শঙ্কুদেবের চিঠি প্রসঙ্গে মুখ খুলে জল্পনা বাড়ালেন দিলীপ ঘোষ

মুখ্যমন্ত্রীকে শঙ্কুদেবের চিঠি প্রসঙ্গে মুখ খুলে জল্পনা বাড়ালেন দিলীপ ঘোষ

কিছুদিন আগেই রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিতর্কিত ছাত্রনেতা শঙ্কুদেব পান্ডা এক চিঠি লেখেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। যার পরেই রাজ্য-রাজনীতিতে জল্পনা ছড়ায়, তিনি বিজেপির ‘সুরে’ কথা বলছেন। প্রশ্ন উঠে যায় রাজননীতিক মহলে – তাহলে কি তিনি বিজেপিতে যাওয়ার পথ প্রশস্ত করতে চাইছেন? এমনিতেই ‘মূর্তি-ভাঙা’ ইস্যুতে সরগরম গোটা দেশ, তারমধ্যে বিশেষ করে শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি-ভাঙা নিয়ে মাওবাদীদের সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংগঠনকে নিষিদ্ধ করার দাবি তুলে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লেখেন শঙ্কুদেব পাণ্ডা। এমনকি, অভিযুক্তদের অন্যতম অভিষেক মুখোপাধ্যায়, একদা কিষেণজির সঙ্গেও সরাসরি যুক্ত ছিলেন বলে বিস্ফোরক দাবি জানান তিনি।

কিন্তু কলকাতার এক সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ শঙ্কুদেবকে সমর্থনের জায়গায় সম্পূর্ণ তাঁর উল্টো সুরে কথা বললেন। তিনি জানান, আমরা চাই না কোনও সংগঠনকে নিষিদ্ধ করা হোক। কারণ, তাতে ওই সংগঠনকে আরও গুরুত্ব দেওয়া হবে। রাজ্য সরকার তথা প্রশাসনের দায়িত্ব যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া। নিষিদ্ধ করায় কোনও লাভ নেই। শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি যারা ভেঙেছে তাদের প্রশ্রয় দেয় শাসক দল। তাই এ দের নিষিদ্ধ ঘোষণা করলে, নতুন নামে একই কাজ করবে। দিলীপবাবুর এহেন মন্তব্য সামনে আসার পরই নতুন করে জল্পনা ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে, তাহলে কি শঙ্কুদেব নিজে বিজেপিতে যাওয়ার চেষ্টা করলেও, বিজেপি তাঁকে নিয়ে তেমন উৎসাহী নয় তাঁর গায়ে নারদ কেলেঙ্কারির দাগ থেকে যাওয়ায়? নাকি সবটাই পুরো ব্যাপারটাকে ধামাচাপা দেওয়ার প্রচেষ্টা? উত্তর খুঁজতে ব্যস্ত এখন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!