এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আবকি বার, ২০০ পার – পুরভোটের আগেই বিধানসভার রিংটোন ঠিক করে দিলেন দিলীপ ঘোষ

আবকি বার, ২০০ পার – পুরভোটের আগেই বিধানসভার রিংটোন ঠিক করে দিলেন দিলীপ ঘোষ

সামনের কয়েক মাসের মধ্যেই রাজ্যজুড়ে শুরু হতে চলেছে পুরসভা ভোট আর এর পরেই আসতে চলেছে 2021 সালের গুরুত্বপূর্ণ বিধানসভা নির্বাচন। তবে আপাতত বিধানসভা নির্বাচনকে ফাইনাল ম্যাচ ধরে নিয়ে পুরসভা নির্বাচনকে সেমিফাইনাল ম্যাচ হিসেবে লড়ার জন্য সমস্ত রাজনৈতিক দল নিজেদের রণকৌশল তৈরি করছে। কেউ কোনো খামতি রাখতে চাইছেন না। পুরসভার নির্বাচনকে মাথায় রেখে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ দাবি করলেন, উত্তর বঙ্গে বিজেপি আশাতীত ভালো ফল করবে।

সম্প্রতি দিলীপ ঘোষ পৌঁছান মালদার মঙ্গলবাড়িতে। সেখানে বিজেপির জনসংযোগকারী সভা চায় পে চর্চায় যোগ দেন তিনি। তাঁর সঙ্গে ছিলেন জয়প্রকাশ মজুমদার। এই সভা থেকেই তিনি দাবি করেছেন, আগামী দিনের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি উত্তরবঙ্গে ন্যূনতম 50 টি আসন পাবে। উল্লেখযোগ্য, এই মুহূর্তে উত্তরবঙ্গ বিধানসভায় আসন সংখ্যা 54 টি। অন্যদিকে এদিন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দাবি করেছেন পুরসভা ভোটেও উত্তরবঙ্গ বিজেপি সমৃদ্ধ হয়ে জয়লাভ করবে। দিলীপ ঘোষের দাবি প্রসঙ্গে শাসকদলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই দাবির কোনো ভিত্তি নেই।

অন্যদিকে, নাগরিকত্ব ইস্যুতে যেভাবে বিরোধী আন্দোলন মাথাচাড়া দিচ্ছে প্রতিদিন, সেই আন্দোলনকে আটকাতে কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্ব বেশকিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তার মধ্যে একটি হলো অভিনন্দন যাত্রা। এই মুহুর্তে পশ্চিমবঙ্গের জেলায় জেলায় অভিনন্দন যাত্রা করছেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। উত্তরবঙ্গেও তিনি অভিনন্দন যাত্রা কর্মসূচির ভিত্তিতেই গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি আর এস পির রাজ্য সম্পাদক বিশ্বনাথ চৌধুরীর বাড়িতে যান। যা নিয়ে ইতিমধ্যে রাজনৈতিক চর্চা তুঙ্গে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

দেখা যাচ্ছে, 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গের প্রায় সবকটি আসনের দখল নিয়ে ছিল বিজেপি। বিজেপি পায় 8 টির মধ্যে সাতটি আসন। লোকসভা নির্বাচনে এই বিপুল জয়ের ফলে বিধানসভায় বিজেপি 294 টি আসনের মধ্যে 128 টি আসনে এগিয়েছিল। ইতিমধ্যে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে যথেষ্টই ইতিবাচক ইঙ্গিত দিয়েছেন। তাঁর দাবী, রাজ্যে 200 টি আসন দখল করবে বিজেপি। রাজনৈতিক মহলের একাংশের দাবি, বিজেপি ধীরে ধীরে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে তাঁদের সীমা বাড়িয়ে চলেছে।

2011 সালে রাজ্যে বিজেপি কোন আসন পায়নি। কিন্তু 2016 সালে প্রথম তিনটি আসনে জয়লাভ করে বিজেপি। এরপর উপ-নির্বাচনে জয়ী হয়ে এবং বিধানসভায় শক্তি বৃদ্ধি করে তাঁরা। তারপর লোকসভা নির্বাচনের জয় তাঁদের রাজনৈতিক মঞ্চের একেবারে সামনে নিয়ে আসে। এই জয় বিজেপির কাছে একটা মাইলস্টোন হিসেবে থেকে যাবে বলে দাবী রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই এরাজ্যে পুরসভা নির্বাচন। আর তাই নিয়েই চারিদিকে সাজসাজ রব। রাজনৈতিক শিবিরগুলি নির্বাচনী লড়াইয়ে নামার জন্য আপাতত ছক সাজিয়ে চলেছে। অন্যদিকে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই পুরসভা নির্বাচন হওয়ায় আগামী দিনের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট কিছুটা হলেও স্পষ্ট হয়ে উঠবে। আর সেই প্রেক্ষাপটকে ঘিরে নিজেদের ছবি ফুটিয়ে তুলতে এই মুহূর্তে চূড়ান্ত ব্যস্ততা রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে। আপাতত সম্পূর্ণ পরিস্থিতির ওপর নজর রাখবে রাজ্যের ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top