এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কংগ্রেস ও গান্ধী পরিবারকে দ্বিধাবিভক্ত করে শোরগোল তুলে দিলেন দিলীপ ঘোষ

কংগ্রেস ও গান্ধী পরিবারকে দ্বিধাবিভক্ত করে শোরগোল তুলে দিলেন দিলীপ ঘোষ

লোকসভা নির্বাচনে এবার কংগ্রেসের ব্যাপক ভরাডুবি হওয়ার পরই দলের সমস্ত পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে নিয়ে সর্বভারতীয় সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করতে চেয়েছিলেন’ রাহুল গান্ধী। কিন্তু তাকে ঘিরেও কম নাটক হয়নি। রাহুল গান্ধী যাতে ইস্তফা না দেন, তার জন্য দলের অন্যান্য সদস্যরা তাকে অনেক জোরাজুরিও করেছিলেন।

তবে শেষ পর্যন্ত নিজের অবস্থানে অনড় থাকতে দেখা যায় কংগ্রেসের এই তরুণ তুর্কি নেতাকে। যার পরেই সম্প্রতি কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটি একটি বৈঠক করে কংগ্রেসের পরবর্তী সভাপতি কে হবেন, তা নিয়ে আলোচনা শুরু করেছিল। অনেকেই ভেবেছিলেন, হয়ত বা এবার গান্ধী পরিবারের বাইরে বেরিয়ে এসে অন্য কাউকে কংগ্রেস তাদের সভাপতি পদের দায়িত্ব দেবে।

কিন্তু না, সেই সমস্ত জল্পনায় জল ঢেলে দিয়ে অবশেষে গান্ধী পরিবারের বাইরে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতির পদকে রাখতে পারল না কংগ্রেস। অন্তর্বর্তী সভাপতি হিসেবে সোনিয়া গান্ধীকেই বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। আর এতেই কংগ্রেস বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে।

তাহলে কি গান্ধী পরিবারের বাইরে কংগ্রেস সভাপতি করবে না! পরিবারতন্ত্রই কি কংগ্রেসের পরম্পরা হিসেবে থেকে যাবে! আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে এবার এই প্রসঙ্গে কংগ্রেসকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, দু’দিনের চিন্তন বৈঠক উপলক্ষে আজ দুর্গাপুরে উপস্থিত ছিলেন দিলীপবাবু। আর সেই বৈঠক শেষে কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি পদে ফের সোনিয়া গান্ধীকে বসানো নিয়ে কংগ্রেস এবং গান্ধী পরিবারকে কার্যত দ্বিধাবিভক্ত করে দেন তিনি। দিলীপ ঘোষ বলেন, “কংগ্রেসের থেকেও গান্ধী পরিবারের খারাপ অবস্থা।

গান্ধী পরিবার ছাড়া কংগ্রেসের কোনো গতি নেই। কংগ্রেস থাকলে পরিবার থাকবে, আর পরিবার থাকলে কংগ্রেস থাকবে। এই পরিবার কোনদিন বাইরের কাউকে সম্মান দেয়নি। ফলে নতুন নেতৃত্ব তৈরি হয়নি। কংগ্রেসকে বাঁচানোর জন্য অন্তত বাইরের কাউকে সুযোগ দেওয়া উচিত।”

আর গান্ধী পরিবার এবং কংগ্রেস সম্পর্কে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এহেন কথা বললে তা নিয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন বর্ষিয়ান কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য। এদিন তিনি বলেন, “এর ফলে কংগ্রেস ঘুরে দাঁড়ানোর সুযোগ পাবে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!