এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এবার কি এই পুরসভাও বিজেপির দখলে? দিলীপ ঘোষের জেলায় আগমন ঘিরে বাড়ছে জল্পনা

এবার কি এই পুরসভাও বিজেপির দখলে? দিলীপ ঘোষের জেলায় আগমন ঘিরে বাড়ছে জল্পনা

প্রত্যাশা মতই এবার বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের অর্পিতা ঘোষকে হারিয়ে সেখানে শেষ হাসি হেসেছেন বিজেপির সুকান্ত মজুমদার। আর সুকান্তবাবুর এই জয়ের হাসির পেছনে বালুরঘাট পৌরসভার প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডের মানুষদেরই যে ব্যাপক সমর্থন রয়েছে তা ভোটের ফলাফলেই স্পষ্ট হয়ে গেছে। আর তাই এমতাবস্থায় মেয়াদ উত্তীর্ণ এই বালুরঘাট পৌরসভা দখল এখন বিজেপির কাছে পাখির চোখ হয়ে রয়েছে। যার অঙ্গ হিসেবে আগামী 8 জুন শনিবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সফরে আসছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলে খবর।

প্রসঙ্গত, 2014 সালে এই বালুরঘাট পৌরসভা নির্বাচনে তৃণমূল 14 এবং বামেরা 11 টি আসন পায়। আর লোকসভা নির্বাচনে বালুরঘাট শহরের প্রায় সবকটি ওয়ার্ডেই বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত মজুমদার ব্যাপক ভোটে লিড পান। যেখানে খোদ বালুরঘাট শহর তৃণমূল সভাপতি সুভাষ চাকির ওয়ার্ডে 1404 ভোটে এবং কার্যকরী সভাপতি দেবাশীষ মজুমদারের ওয়ার্ডে 789 ভোটে পিছিয়ে থাকে তৃণমূল।

এদিকে পৌরসভায় তাদের একটি কাউন্সিলর না থাকা সত্ত্বেও যেভাবে বালুরঘাট পৌরসভার প্রায় প্রতিটি ওয়ার্ডেই বিজেপি ব্যাপক ভোটে লিড পেয়েছে, তারপরই এই বালুরঘাট পৌরসভা দখলের ব্যাপারে উদ্যোগী হয়েছে তারা। এই পরিস্থিতিতে আগামী 8 জুন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সফরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সফর নিয়ে রীতিমত উজ্জীবিত জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। জানা গেছে, শনিবার জেলায় এসে প্রথমে বুনিয়াদপুরের বিজয় মিছিলে যোগ দিয়ে গঙ্গারামপুরে বিজয় মিছিল করে বালুরঘাটের বিজয় মিছিলে যোগদান করবেন দিলীপবাবু।

আর তারপরই বালুরঘাট শহরে দলের কার্যকর্তাদের নিয়ে একটি বৈঠক করার কথা রয়েছে তার। যেখানে বালুরঘাট পৌরসভায় দলীয় সংগঠনকে আরও মজবুত করে সাজাতে এবং এই পৌরসভাকে নিজেদের দখলে রাখতে দলের কার্যকর্তাদের জয়ের টনিক দিতে পারেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলে মত পর্যবেক্ষকদের।

এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন, “বালুরঘাট পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডেই আমরা লিড নিয়েছি। শহরবাসী আমাদের সাথেই রয়েছে। আগামী পুর নির্বাচনেও তারা আমাদের সঙ্গে থাকবেন। 8 জুন রাজ্য সভাপতি আসছেন। পুরসভা নিয়ে তার সঙ্গেও কথা হবে।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের আগমনকে গুরুত্ব দিতে নারাজ শাসক দল। এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী অর্পিতা ঘোষ বলেন, “কে কোথায় আসছে তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। আমাদের সংগঠন এখানে মজবুত রয়েছে, আরও মজবুত করা হচ্ছে। বালুরঘাট পৌরসভা আমাদের দখলে ছিল, আর আগামীতেও থাকবে।”

কিন্তু অর্পিতাদেবী বালুরঘাট শহরে দলীয় সংগঠন মজবুতের কথা বললেও কেন তিনি বালুরঘাট শহর থেকেই এত পরিমাণে ভোটে পিছিয়ে গেলেন, সেই প্রশ্নের উত্তর কিন্তু তৃণমূলের কাছ থেকে পাওয়া যায়নি। তবে বিশেষজ্ঞরা অবশ্য বলছেন, বালুরঘাটে তৃণমূলের মূল সংগঠনের যে সমস্ত নেতৃত্বরা রয়েছেন তারা সেইভাবে দলীয় কর্মসূচি নিতে অপারগ। বরঞ্চ শহর তৃণমূলের শীর্ষে থাকা অনেক নেতাদের জন্য দলকে বারেবারেই বিড়ম্বনায় পড়তে হয়েছে।

কিন্তু তারপরও বর্তমান দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সভানেত্রী অর্পিতা ঘোষ যেভাবে সংস্কৃতির শহর বালুরঘাটকে গতি দেওয়া অপেক্ষা শহরের মূল সংগঠনের মাথার ওপর অকেজো এবং নানা ঘটনায় অভিযুক্ত নেতাদের বসিয়ে রেখেছেন, তাতে বালুরঘাটে তৃণমূল আদৌ মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে কিনা, তা নিয়ে একটা প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই এবার বালুরঘাট পৌরসভা দখলের জন্য স্ট্র্যাটেজি ঠিক করছে গেরুয়া শিবির বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!