এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > মমতা থেকে দলীয় নেতা – ‘কাটমানি’ ইস্যুতে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন দিলীপ ঘোষ

মমতা থেকে দলীয় নেতা – ‘কাটমানি’ ইস্যুতে তৃণমূলের অস্বস্তি বাড়িয়ে দিলেন দিলীপ ঘোষ

লোকসভা নির্বাচনে এবার তৃণমূলের ফলাফল খুব একটা ভাল হয়নি। 42 এর স্লোগান তুলেও 22 এই আটকে যেতে হয়েছে তাদের। অন্যদিকে বিজেপি 18 টি আসন নিজেদের দখলে নিয়ে নিয়েছে। আর এই পরিস্থিতিতে দলের খারাপ ফলাফলে কি করে ভাবমূর্তি ফেরানো যায়, তার জন্য ফলাফল পর্যালোচনা বৈঠকের দুর্নীতিকেই প্রধানভাবে দায়ী করতে দেখা যায় তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বকে। আর এরপরই গত 18 জুন নজরুল মঞ্চে দলীয় কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠকের কাটমানি নেওয়ার ব্যাপারে কড়া হুঁশিয়ারি দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কড়া ভাষায় তিনি জানিয়ে দেন, কেউ কাটমানি নিলে তা তাকেই ফেরত দিতে হবে। যা নিয়ে তোলপাড় হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি। কিন্তু তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের ভাবমূর্তি ফেরাতে কাটমানি বন্ধ করার ব্যাপারে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেও এই ব্যাপারে সব থেকে বড় বেশি বিপাকে পড়েছে ঘাসফুল শিবির। কেননা মুখ্যমন্ত্রীর কড়া হুঁশিয়ারি দিকে দিকে তৃণমূলের দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের কাছ থেকে টাকা ফেরতের দাবিতে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে দেখা গেছে সাধারন মানুষদের। যা নিয়ে বিরোধীদের তরফেও তৃণমূলকে উদ্দেশ্য করে খোঁচা দেওয়ার পালা শুরু হয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এই পরিস্থিতিতে প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছে রাজ্যের শাসক দল। আর এবার কাটমানি ইস্যুতে ফের তৃণমূলে কড়া ভাষায় বিধলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। এদিন দুর্নীতিগ্রস্ত নেতাদের টাকা ফেরতের দাবি তুলে বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, “দোষ হয়েছে কিনা আমি জানি না। কিন্তু যার টাকা নেওয়া হয়েছে, শিক্ষকের চাকরি দেওয়া থেকে অন্য রকম সুবিধা, ঘর দেওয়ার নাম করে, সেই সব টাকা কে ফেরত দেবে!” কিন্তু বর্তমানে যখন এই কাটমানি ফেরতের দাবিতে বিভিন্ন দুর্নীতিগ্রস্ত তৃণমূলের নেতাদের ঘিরে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে সাধারন মানুষ, ঠিক তখনই সেই অভিযুক্ত ব্যক্তিদের ক্ষমা প্রার্থনা করতে দেখা যাচ্ছে।

এদিন সেই প্রসঙ্গেও মুখ খোলেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “এতদিন তো লোক চুপ করেই ছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উৎসাহ দিয়েছেন কাটমানি চেয়ে নিন। তারপর থেকে সাধারণ মানুষ কাটমানি চাইছে। তাই এই কাটমানি নেওয়ার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা লুট করা হয়েছে। আর এই টাকা যদি ফেরত না দেওয়া হয়, তাহলে সমস্যার সমাধান হবে না।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাটমানি নিয়ে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পরই দিকে দিকে বিক্ষোভ বেড়েছে। আর অস্বস্তি বেড়েছে তৃণমূলের। আর এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলের অস্বস্তিকে আরও বাড়িয়ে দিতে সেই কাটমানি ইস্যুতে টাকা ফেরতের দাবিতে সোচ্চার হলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!