এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দিলীপ ঘোষের সঙ্গে হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার খোশগল্পের ছবি ভাইরাল – তীব্র ক্ষোভ তৃণমূল সমর্থকদের

দিলীপ ঘোষের সঙ্গে হেভিওয়েট তৃণমূল নেতার খোশগল্পের ছবি ভাইরাল – তীব্র ক্ষোভ তৃণমূল সমর্থকদের

রাজ্য রাজনীতিতে বর্তমানে যখন অহিনকুল সম্পর্ক শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেস ও বিরোধীদল বিজেপির মধ্যে, ঠিক তখনই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সাথে তৃনমূল পরিচালিত খড়গপুর পুরসভার চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকারের খোশমেজাজে গল্প ও হাসিঠাট্টার ছবি সামনে আসতেই চরম চাঞ্চল্য সৃষ্টি হল  এলাকায়।

জানা যায়, গত রবিবার দুপুরে খড়্গপুর শহরের একটি লজে এক বিজেপি নেতার সামাজিক অনুষ্ঠানে তৃনমূলের চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকার ও বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা খড়গপুরের বিধায়ক দিলীপ ঘোষ নিমন্ত্রিত ছিলেন। এদিন অনুষ্টানে বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষ পৌঁছতেই সেখানে নিমন্ত্রিতদের তালিকায় থাকা  তৃণমূল কংগ্রেসের শহর সভাপতি রবিশঙ্কর পাণ্ডে বেরিয়ে যান। আর এর কিছুক্ষণ পরেই সেখানে এসে পৌঁছান তৃনমূল পরিচালিত খড়গপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রদীপ সরকার।

অভিযোগ, তৃনমূলের এই চেয়ারম্যানকে এদিন বিজেপির দিলীপ ঘোষের পাশের চেয়ারে বসে খোশগল্প করতেও দেখা যায়। আর তখনই তাঁদের সে হাসি-গল্পের ছবি মোবাইল বন্দি হলে পরে তা ফেসবুকে ছড়িয়ে দিতেই প্রদীপ সরকারকে নিয়ে শাসকদলের অন্দরেই প্রবল সমালোচনার ঝড় উঠতে শুরু করে। শুধু এখানেই শেষ নয়, তৃণমূল অনেক কর্মী-সমর্থকেরা সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে নানা মন্তব্যও করেন। আর সোমবারও সকাল থেকে শহরজুড়ে সেই একই আলোচনা! দল যখন প্রবল বিজেপি বিরোধী তখন সেই বিজেপির রাজ্য সভাপতির সাথেই এত খোশগল্প কেন! এ প্রসঙ্গে এদিন তৃনমূলেরই সেই প্রদীপ সরকার বলেন, “একটা অনুষ্ঠানে আমিও গিয়েছি, বিজেপির বিধায়কও গিয়েছেন। এবার তিনি যদি আমাকে পাশে বসতে বলেন তাহলে বসব না? না বসলে যাঁরা ওখানে ছিলেন, তাঁরা কী ভাবতেন?”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

এদিকে এই ছবি সোশাল মিডিয়ায় পোষ্ট করা প্রসঙ্গে প্রদীপ সরকার বলেন, ” যাঁরা এই ছবি পোস্ট করে নোংরামো করছেন, তাঁদের আমি তৃণমূল কর্মী বলে মনে করি না। রাজনীতির লড়াই তো রাস্তায় দাঁড়িয়ে হচ্ছে। দলনেত্রী আমাদের সৌজন্যের রাজনীতি শিখিয়েছেন।” এদিকে শাসকদলের চেয়ারম্যানের সাথে গল্প করায় তৃনমূল কর্মীরা ভয় পেয়েছে। এহেন অভিযোগ এনে বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা খড়গপুরের বিধায়ক দিলীপ ঘোষ বলেন, “এত ভয় কিসের? আমরা সৌজন্যের রাজনীতি করি। উনি চেয়ারম্যান। দেখা হল, কুশল বিনিময় করলাম। এটাই তো স্বাভাবিক। এ নিয়ে কিছু লোক যা করছে, সেই ছোঁয়াচে রাজনীতি বন্ধ হওয়া উচিত।

তবে তৃনমূলের চেয়ারম্যান হয়ে বিজেপির সভাপতির সাথে এই গল্পের তীব্র বিরোধিতা করে জেলা তৃণমূলের নেতা তথা খড়্গপুর পুরসভার কাউন্সিলার দেবাশিস চৌধুরি বলেন, “যিনি সৌজন্য দেখাতে পারেন না, তাঁর সঙ্গে আবার সৌজন্য কিসের? যিনি সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে গালিগালাজ করেন তাঁর সাথে কোনো সৌজন্য দেখানোর প্রশ্নই নেই।”  সব মিলিয়ে খড়গপুর পুরসভার তৃনমূল চেয়ারম্যানের সাথে বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষের ছবি প্রকাশ্যে এবার দলীয় চেয়ারম্যানকে নিয়েই তীব্র চাপানউতোর শাসকদল তৃনমূল কংগ্রেসে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!