এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বহিরাগত দিয়ে তৃণমূলের সভায় ভাংচুর চালানোর অভিযোগ

দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বহিরাগত দিয়ে তৃণমূলের সভায় ভাংচুর চালানোর অভিযোগ

ফের তৃণমূলের অভিযোগের নিশানায় রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। দিলীপ ঘোষকে নিয়ে তৃণমূলের অভিযোগের শেষ নেই। কখনো তিনি তৃণমূলের বিরুদ্ধে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণের জন্য বিতর্কে জড়ান, আবার কখনো সরাসরি তৃণমূলকে অশালীন বাক্যবানে ঘায়েল করেন।

এদিন রাজ্য বিজেপি সভাপতির বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তৃণমূলের পদসভা এবং অবস্থান বিক্ষোভে বাধা সৃষ্টি করেছেন বিজেপি কর্মীদের দিয়ে হামলা করিয়ে। এবং এই কাজটা করা হয়েছে জলপাইগুড়ি সহ বাইরে থেকে লোক এনে। মাইক পর্যন্ত ভেঙে দেওয়া হয়েছে। ধস্তাধস্তি হলেও দু পক্ষের কোনো হতাহতে খবর এখনো পাওয়া যায়নি।

জেলা সূত্রের খবর থেকে জানা যায়, হলদিবাড়িতে সভা করার জন্য বিজেপি রাজ্য সভাপতি প্রশাসনের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন। কিন্তু বিজেপির সভা করার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। এর জেরে তাঁরা রেলের জমিতে সভা করার সিদ্ধান্ত নেয়।

অন্যদিকে,অসমে জঙ্গিদের গুলিতে বাঙালি নিধনের প্রতিবাদ জানাতে ট্রাফিক মোড়ে পাল্টা অবস্থান বিক্ষোভ এবং পথসভার ডাক দেয় তৃণমূল। জলপাইগুড়ি থেকে হলদিবাড়ি আসার পথপ কাশিয়াবাড়ি মোড়ে তৃণমূল-বিজেপি দুই প্রতিপক্ষের দলীয় কর্মী-সমর্থকরা জমায়েত হন।

এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বচসা বাধে। তারপর কাশিয়াবাড়ি থেকে মিছিল করে শহরে প্রবেশ করেন দিলীপবাবু্। তিনি শহরে ঢোকার পরই পরিস্থিতি আরো উত্তপ্ত হয়ে যায় বলেই অভিযোগ। অভিযোগ,হলদিবাড়ি থানার পুলিশি ব্যারিকেড ভেঙে তৃণমূলের পথসভায় ব্যাঘাত ঘটায় বিজেপি। তৃণমূল কর্মীরা সেখান থেকে সরে গেলে দিলীপ বাবু রেল ক্রসিংয়ের পাশে পথসভা করেন।

ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় তৃণমূলের হলদিবাড়ি ব্লক সভাপতি তথা বিধায়ক অর্ঘ্য রায় প্রধান জানান, প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই তৃণমূলের তরফ থেকে পথসভা এবং অবস্থান বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়ছিল ট্রাফিক মোড়ে। আর সবটাই অসমের বাঙালি নিধনের প্রতিবাদ জানানোর জন্যে।

কিন্তু সেই সভা বহিরাগত দুষ্কৃতিদের দিয়ে হামলা করিয়ে নষ্ট করেছে দিলীপ ঘোষ। হামলার সময় তিনি যথারীতি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। যেহেতু তাঁর প্রত্যক্ষ উপস্থিতিতেই ঘটনাটি ঘটেছে তাই,দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে এ অভিযোগ একেবারেই ভিত্তিহীন বলে দাবী করলেন বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলা সভাপতি দেবাশিস চক্রবর্তী। তিনি জানালেন,হলদিবাড়িতে সভা করার জন্যে প্রশাসন অনুমতি না মেলায়,রাজ্যসভাপতির নেতৃত্বে রেলজমিতে বিজেপির সভা হয়েছে ওদিন।

তৃণমূলের সভার উপর কোনো হামলাই করা হয়নি। শাসকদল নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্যেই বিজেপির উপর মিথ্যে অভিযোগ করছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!