এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অমিত শাহের জরুরি তলব দিলীপ ঘোষকে,বাড়ছে জল্পনা

অমিত শাহের জরুরি তলব দিলীপ ঘোষকে,বাড়ছে জল্পনা

রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে জরুরি তলব অমিত শাহের যা ঘিরেজোর জল্পনা রাজনৈতিক মহলে। রাজ্য বিজেপি সভাপতিকে জরুরি তলব করেছেন সভাপতি অমিত শাহ আর সেই কারণেই আজ দিল্লি যাচ্ছেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সঙ্গে যাচ্ছেন সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায় ও। কিন্তু হঠাৎ কেন জরুরী তলব তা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা।

কেননা আসামে নাগরিক পঞ্জিকা তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর 40 লক্ষ মানুষের নাম বাদ গেছে যা নিয়ে ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিরোধিতা করতে শুরু করেছেন। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে প্রিতিনিধি দল পাঠাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী।এই নিয়ে রাজনীতি করে তৃণমূল বিজেপিকে কোনঠাসা করার চেষ্টা করছে বলে দাবি তুলেছে বিজেপি এবংমুখ্যমন্ত্রীর কারণে নিজেদের ভাবমূর্তি নষ্ট হতে বসেছে যার প্রভাব পড়তে পারে লোকসভা নির্বাচনে। তাই কি বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীকে মত্ দিতে কোনো পরিকল্পনা করতেই তড়িগড়ি ডেকে পাঠানো হলো দিলীপ ঘোষকে জল্পনা চরমে।

অন্যদিকে অনেকে মনে করছেন যে নাকি অন্য কিছু আছে. কয়েকদিন পরে আসতে চলেছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। প্রধানমন্ত্রীর সভায় গিয়ে সামিয়ানা ভেঙে আহত হয়েছেন অনেক মানুষ। তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী এবং তৃণমূলের সভায় তারা বিজেপির থেকে বেরিয়ে এসে তৃণমূলে আশ্রয় নিয়েছেন বলেও জানা গেছে। তাই যেন এরকম কোনো কান্ড না ঘটে সে জন্য পরিকল্পনা করতেই কি ডেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে, এ নিয়ে চলছে জল্পনা। পাশাপাশি কৈলাশ বিজয় বর্গী জানিয়ে দিয়েছেন বিজেপি এবার থেকে যে সভা করবে তাতে কোন ছাউনি ব্যবহৃত হবে না।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

পাশাপাশি সভা করার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন। শুধু তাই নয় কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবারের সভায়৫লক্ষ লোক নিয়ে আসতে হবে। কিভাবে সেই লোক জোগাড় করা হবে সেই নিয়ে পরামর্শের জন্যই কি জোরদার তলব উঠছে প্রশ্ন। এই নিয়ে অবশ্য দিলীপবাবু স্পষ্ট কিছু জানান। তিনি বলেন যে ১১ আগস্ট আমরা সভা করবোই। তার জন্য আমরা রাজ্য সরকারের কাছে আবেদন করেছি। রাজ্য সরকারের সিদ্ধান্ত জানার পরে আমরা সেটা নিয়ে কাজ শুরু করব. রাজ্য সরকার আমাদের অনুমতি না দেন তাহলে আমরা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হবো এবং এখনও পর্যন্ত যা ঘটেছে পাশাপাশি এখনও পর্যন্ত সভা করা নিয়ে যে সমস্ত সিদ্ধান্ত আমরা নিয়েছি এবং যা যা প্রয়োজনীয় কাজ করা হয়েছে তার বিস্তারিত রিপোর্ট আমরা তুলে দেবো অমিত শাহ কে।

এছাড়া সাংগঠনিক বিষয়ে নিয়মিত রিপোর্ট তুলে দেওয়া হবে। পাশাপাশি রথযাত্রার রুট প্ল্যান তাঁর হাতে তুলে দেওয়া হবে। সুতরাং রাজনৈতিক মহলের ধারণা অন্যান্য সমস্ত বিষয়ের পাশাপাশি রথ যাত্রার পরিকল্পনা নিয়োগ বিস্তারিত আলোচনা হতে পারে এই দিল্লি সফরে। জল্পনা এমন জায়গায় ছড়িয়েছে যে তড়িঘড়ি করে দিলীপ ঘোষকে ডেকে পাঠানোর পিছনে রাজ্য সভাপতি নিয়ে বড়োসড়ো কোন রদবদলের সিদ্ধান্ত নিতে চলেছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। আর তাই সেই ব্যাপারে আলাপ আলোচনার জন্যই ডেকে পাঠানো হয়েছে। তবে আসল কারণ যে কি সেটা এখনো পর্যন্ত জল্পনাতেই রয়েছে। এ বিষয়ে পরিষ্কার করে বিজেপির তরফ থেকে এখনও পর্যন্ত কিছু জানানো হয়নি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!