এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুকুল রায় না দিলীপ ঘোষ – জঙ্গলমহল তুমি কার? প্রশ্নে দ্বিধাবিভক্ত রাজনৈতিক মহল

মুকুল রায় না দিলীপ ঘোষ – জঙ্গলমহল তুমি কার? প্রশ্নে দ্বিধাবিভক্ত রাজনৈতিক মহল

রাজ্যে সদ্য সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের অন্যতম বিতর্কিত জায়গা জঙ্গলমহলের বহু আসনে জয়লাভ করেছে গেরুয়া শিবির। কিন্তু এই সাফল্যের নেপথ্যে কার ভূমিকা অনস্বীকার্য তা নিয়ে বিতন্ডা শুরু হয়েছে দলের অন্দরে। শুধু তাই নয় তার জের পড়েছে রাজনোইতিক মহলেও। প্রশ্ন উঠছে রাজ্যের অন্যান্য জায়গায় যেখানে এই হারে সাফল্য আসেনি বিজেপির সেখানে জঙ্গলমহলে গেরুয়া শিবিরের সাফল্যের রহস্য টা ঠিক কী! মুকুল রায়ের তৃণমূল কংগ্রেস দল ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগদান নাকি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের দল পরিচালন পদ্ধতি। বিষয়টি এখন রাজনীতিতে অন্যতম বিতর্কের বিষয় হয়ে উঠেছে। মুকুল রায়ের অনুগামীদের মতে জঙ্গলমহলে বিজেপির এই সাফল্য দাদা (মুকুল রায়)-র জন্যই।    তারা এও দাবি করছেন যে ,তিনি বিজেপিতে যোগদান না করলে এই সাফল্য বিজেপির ঝুলিতে আসতো না । নিজেদের বক্তব্যের স্বপক্ষে যুক্তি দিয়ে মুকুল রায় অনুগামীরা জানাচ্ছেন , মুকুল রায় দীর্ঘ ২০ বছর ধরে তৃণমূল কংগ্রেসের সংগঠনের দায়িত্বে। রাজ্যের প্রতিটি প্রান্তের তৃণমূল নেতাকে তিনি হাতের তালুর মতো চেনেন। আর জঙ্গলমহলে মুকুল রায়ের কর্তৃত্ব আরও বেশি। জঙ্গলমহলে তৃণমূলের সংগঠন ঢেলে সাজানোর কাজ তিনি নিজে হাতে করেছিলেন। মুকুল রায় দল ছাড়ার পর তাঁর সঙ্গে অনেকেই বিজেপিতে নাম লেখান। জানা যাচ্ছে মুকুল রায় অনুগত অনেক তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী দল ত্যাগ করতে না পারলেও পরোক্ষে সমর্থন করেছেন মুকুল বাবুকে। তার প্রতিফলন দেখা গেছে ভোট বাক্সে। তবে এই কথা মানতে একদমই অসম্মত বিজেপির আদি নেতারা। তাঁদের মতে দিলীপ ঘোষ জঙ্গলমহলের ভূমিপূত্র। তারপর এই পঞ্চায়েতের আগে তিনি জঙ্গলমহলে দফায় দফায় কর্মিসভা, জনসভা করেছেন। তার একটা প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে। তারা এও মনে করছেন  মুকুল রায় বিজেপিতে যোগদানের অনেক আগে থেকেই দিলীপ ঘোষ ঐ এলাকায় সংগঠন বাড়ানোর কাজ শুরু করেছিলেন । তাই দিলীপ বাবুর অবদানকে কোনো মতেই অবজ্ঞা করা যায় না। তিনি নিজেই তাঁর জেলায় সাফল্য আনার কারিগর। অন্যদিকে মুকুল রায় তাঁর নিজের জেলা উত্তর ২৪ পরগনায় কোনও সাফল্যই পাননি। উলটে রাজ্যের শাসক দল ঐ জেলায় বিরোধী দলের অস্বিত্বই নিশ্চিহ্ন করে দিয়েছে। দলের সাফল্যে বিজেপির দুই নেতার ভূমিকা নিয়ে রাজ্য রাজনীতি সরগরম হলেও দিলীপ ঘোষ এবং মুকুল রায় এই দ্বন্দ্বে অংশ গ্রহণ করতে কার্যতই অনিচ্ছুক। তাঁদের যৌথ বক্তব্য রাজ্যের মানুষ বিকল্প চাইছেন বলেই বিজেপির কথা ভাবছে। তার প্রতিফলন ঘটতে শুরু করে দিয়েছে। আর সেই কারণেই জঙ্গলমহল ও উত্তবঙ্গের কিছু জেলায় বিজেপি সাফল্য পেয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!