এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “দিদিকে বলো” কর্মসূচি ও বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে মুখ খুললেন মদন মিত্র! জল্পনা তুঙ্গে

“দিদিকে বলো” কর্মসূচি ও বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে মুখ খুললেন মদন মিত্র! জল্পনা তুঙ্গে

দীর্ঘদিন সারদা মামলায় জেল খাটতে হয়েছিল তাকে। পরবর্তীতে ছাড়া পেয়ে তৃণমূল নেতা হিসেবে নিজের রাজনৈতিক জীবনকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন মদন মিত্র। তবে একদা রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী মদনবাবু চাইছিলেন, তাকে যেন দলের তরফে একবার নির্বাচনে লড়ার সুযোগ দেওয়া হয়। সেইমত লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে সেই মদন মিত্রকে টিকিট দেওয়া হতে পারে বলে জল্পনা ছড়িয়েছিল।

তবে লোকসভায় তাকে টিকিট দেওয়া না হলেও ভাটপাড়া বিধানসভা উপনির্বাচনে সেই মদন মিত্রকে প্রার্থী করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া অর্জুন সিংহের পুত্র পবন সিংহের কাছে হেরে যেতে হয়েছিল মদন মিত্রকে। যার পর থেকেই ফেসবুক লাইভে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মন্তব্যের পাশাপাশি সারদাকাণ্ডে জেলে থাকার সময় রাজ্য পুলিশের পক্ষ থেকে তিনি কোনো সহযোগিতা পাননি বলে পরোক্ষে দলের বিরুদ্ধে নানা মন্তব্য করতে দেখা যায় রাজ্যের এই প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রীকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এমনকি কিছুদিন আগে যে রাম নামকে কেন্দ্র করে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে বঙ্গ রাজনীতিতে দ্বৈরথ চরমে উঠেছে, সেই রাম নামের আসর নিজের ভবানীপুরের বাড়িতে বসাতে চেয়েছিলেন’ মদন মিত্র। যে ঘটনায় রাজ্য রাজনীতিতে তীব্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল। অনেকেই ভেবেছিলেন, হয়ত বা রাম নামের আসর বসিয়ে বিজেপিতে যাওয়ার পথ প্রশস্ত করছেন মদনবাবু। তবে পরবর্তীতে তা বাতিল করতে দেখা যায় তাকে। আর এবার সেই “দিদিকে বলো” কর্মসূচির ভূয়সী প্রশংসা করতে দেখা গেল সেই মদন মিত্রকে।

সূত্রের খবর, গতকাল সারদা মামলার হাজিরা দিতে বারাসাতের বিশেষ আদালতে গিয়েছিলেন এই তৃণমূল নেতা। আর সেখানেই “দিদিকে বলো” কর্মসূচির পক্ষে মন্তব্য করতে গিয়ে মদন মিত্র বলেন, “দিদিকে বলোর মধ্যে দিয়ে অনেক মানুষ সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পাচ্ছেন। তাদের বিভিন্ন অভাব অভিযোগ তুলে ধরতে পারছেন। এটা অবশ্যই একটা ভালো দিক। জনসংযোগ নিবিড় ও সম্পর্ক দৃঢ় করতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।”

অন্যদিকে কাটমানি প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে গিয়ে কাটমানির কথা একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলতে পেরেছেন। আর মুখ্যমন্ত্রী বলার পর অনেক জায়গায় সাধারণ মানুষ তাদের টাকা ফেরত পাচ্ছেন বলে দাবি করেন মদন মিত্র। পাশাপাশি এদিন ভাটপাড়ায় শান্তি ফেরানোর আবেদন জানিয়ে তার বিজেপি যোগ নিয়েও মুখ খোলেন এই তৃণমূল নেতা। তিনি বলেন, “আমি দলে কোনো পদে নেই। তবুও আমি মানুষের কাজ করে যাব‌। কিন্তু আমি বিজেপিতে যাব না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, কিছুটা চাপে পড়েই একদিকে দিদিকে বলো কর্মসূচির প্রশংসা, আর অন্যদিকে বিজেপিতে যোগ না দেওয়ার ব্যাপারে তার স্পষ্ট অবস্থান তুলে ধরলেন মদন মিত্র। কেননা কিছুদিন আগেই তার বিভিন্ন মন্তব্যে দলকে অস্বস্তিতে পড়তে হয়েছিল। ফলে দলের মূল স্রোত থেকে তিনি যাতে বিচ্যুত না হয়, তার জন্য এদিন বিজেপি যোগের সমস্ত জল্পনা-কল্পনাকে উড়িয়ে দিয়ে তিনি তৃণমূলে থেকেই মানুষের কাজ করবেন বলে জানিয়ে দিলেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!