এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দিদিকে খুশি করতেই কি ফেসবুক লাইভে বিজেপি সম্পর্কে অশালীন মন্তব্য মদন মিত্রর, জোর জল্পনা

দিদিকে খুশি করতেই কি ফেসবুক লাইভে বিজেপি সম্পর্কে অশালীন মন্তব্য মদন মিত্রর, জোর জল্পনা

বাংলার রাজনীতিবিদদের মধ্যে ফেসবুক লাইভে বরাবরই হিরো নাম্বার ওয়ানে রয়েছেন তিনি। লাইভে আসার সাথে সাথেই তার ওয়ালে একের পর এক লাইক, কমেন্টের বন্যা বয়ে যেতে শুরু করে। বিভিন্ন বিষয়ে বিভিন্ন সময় লাইভ করতে দেখা যায় রাজ্যের প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা মদন মিত্রকে।

কিছুদিন আগেই ভাটপাড়া বিধানসভা উপনির্বাচনে দাঁড়িয়েও জয়লাভ করতে পারেননি তিনি। আর এরপর সারদাকাণ্ডে তার জেলে থাকা নিয়ে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের উদ্দেশ্যে তির্যক মন্তব্য করতে দেখা গেছে এই তৃণমূল নেতাকে। যা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে ব্যাপক জল্পনা ছড়িয়ে পড়েছিল।

অনেকেই দাবি করেছিলেন, এবার হয়তো দলের সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক চুকিয়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন মদনবাবু। তবে সে সব কিছু হয়নি। কিন্তু কিছুদিন আগেই যে রামনাম কে কেন্দ্র করে বঙ্গ রাজনীতি উত্তাল, সেই রামনামের আসর নিজের ভবানীপুরের বাড়িতে বসানোর কথা ঘোষণা করেছিলেন এই তৃণমূল নেতা। যা নিয়ে রাজ্যের শাসক দল কিছুটা হলেও অস্বস্তিতে পড়েছিল।

পরে অবশ্য সেই রামনামের আসর ভন্ডুল করে দেওয়ার কথা জানান স্বয়ং মদন মিত্র নিজেই। যার কারণ হিসেবে অনেকেই মনে করেছিলেন, নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ধমক খেয়ে রামভজনা থেকে পিছু হটতে হয়েছে রাজ্যের এই প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রীকে। এদিকে নেত্রীর কাছে তিনি বিরাগভাজন হচ্ছেন, তা অনুধাবন করেই এবার কি রাজ্যের বিরোধী দল বিজেপির উদ্দেশ্য অশালীন মন্তব্য করলেন মদন মিত্র! এখন তা নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, উত্তর 24 পরগনা জেলার নিউ ব্যারাকপুর আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র কলেজে এদিন বিজেপির ছাত্র সংগঠন এবিভিপির ডেপুটেশন দেওয়াকে কেন্দ্র করে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সঙ্গেই এবিভিপির প্রতিনিধিদের ব্যাপক সংঘর্ষ বাঁধে। যে ঘটনায় আহত হন বেশ কয়েকজন।

এদিন সেই ঘটনায় আহত তৃণমূল কর্মীদের দেখতে বেসরকারি হাসপাতালে উপস্থিত হন মদন মিত্র। আর সেখানেই ফেসবুক লাইভে এসে বিজেপিকে সারমেয়র সঙ্গে তুলনা করেন তিনি। যেখানে ফেসবুক লাইভে মদন মিত্র বলেন, “বিজেপিকে পশ্চিমবঙ্গের সারমেয়র সঙ্গে তুলনা করার জন্য আমার কোনো লজ্জা নেই। যে বিজেপি বলতে পারে ওরা সব চামচা বুদ্ধিজীবী, সেই বিজেপিকে সারমেয় ও বরাহ বললেও ভুল হবে না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, সম্প্রতি বিভিন্ন সময় দলের বিরুদ্ধে ফেসবুক লাইভে পরোক্ষে নানা মন্তব্য করতে দেখা যাচ্ছিল মদন মিত্রকে। যা নিয়ে বিভিন্ন মহলে তার বিজেপি যোগের জল্পনা স্পষ্ট হয়ে উঠেছিল। কিন্তু এবার কলেজে সংঘর্ষের ঘটনায় বিজেপিকে “সারমেয়” বলে অভিহিত করে তিনি কি নিজের দলের কাছে ভালো সাজার চেষ্টা করলেন! বিশ্লেষকদের একাংশ বলছেন, কিছুদিন আগেই নিজের বাড়িতে রামনামের ভজনা করার কথা ঘোষণা করেছিলেন মদন মিত্র।

যা নিয়ে হয়ত বা দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে ধমক খেতে হয়েছে তাকে। আর তাইতো দলের কাছে নিজের ভাবমূর্তি স্পষ্ট করতে এখন বিরোধীদলের উদ্দেশ্যে ফেসবুক লাইভে এসে কটু মন্তব্য করতে দেখা গেল তাঁকে। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন তার দলকে স্বচ্ছভাবে সাধারণ মানুষের কাছে উপস্থাপিত করতে চাইছেন, ঠিক তখনই নিজেকে দলের কাছে ভালো করার জন্য মদন মিত্রের বিজেপির উদ্দেশ্যে এহেন কটু মন্তব্য তৃণমূল নেত্রী আদৌ বরদাস্ত করেন কিনা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!