এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দার্জিলিং তুমি কার? প্রচারে ঝড় তুলে অ্যাডভ্যানটেজ নিতে চাইছে তৃণমূল-বিজেপি দুই দলই

দার্জিলিং তুমি কার? প্রচারে ঝড় তুলে অ্যাডভ্যানটেজ নিতে চাইছে তৃণমূল-বিজেপি দুই দলই

গত 2014 লোকসভা নির্বাচনে সারাদেশে গেরুয়া ঝড় উঠলেও এই রাজ্যে বেশিরভাগ আসনেই নিজেদের জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে শৈলশহর দার্জিলিং লোকসভা আসনটি পেয়েছিল বিজেপি। আর আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে সেই দার্জিলিং লোকসভা আসনটি নিজেদের দখলে আনতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ঘাসফুল শিবির। পিছিয়ে নেই বিজেপিও।

এবার এখানে বিজেপির তরফে প্রার্থী হওয়ার পরই রাজু বিস্তা গত 24 শে মার্চ প্রথম পাহাড়ে পা রেখে 26 শে মার্চ তাঁর মনোনয়নপত্র জমা করেন। আর মনোনয়নপত্র জমা করার পরদিন থেকেই বিন্দুমাত্র সময় নষ্ট না করে নিজের দলের কর্মী সমর্থক ও জিএনএলএফের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে চা বলয়ে জোর প্রচার চালাতে শুরু করেন বিজেপি প্রার্থী।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন জায়গায় প্রচারে গিয়ে দার্জিলিং লোকসভা আসনটি বিজেপির হাতে দেওয়ার জন্য সাধারণ মানুষের কাছে আবেদন জানিয়ে রাজ্য সরকারের ভাঁওতাবাজির কথা তুলে ধরতে শুরু করেছেন রাজু বিস্তা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিন নিজের নির্বাচনী প্রচারে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপি প্রার্থী বলেন, “গোর্খাদের সাহায্য করবার জন্য বিজেপি পাহাড়ে একজন গোর্খাকেই পাঠিয়েছে। গোর্খাদের দুঃখ একজন গোর্খাই উপলব্ধি করতে পারে।”

যেন-তেন প্রকারেণ দার্জিলিং লোকসভা আসনটি এবার নিজেদের দখলে আনতে তৃণমূল প্রার্থী অমর সিং রাই এবং বিনয় তামাংয়ের সমর্থকরাও পাহাড়ের চাবাগানগুলিতে জোর প্রচারে নেমে পড়েছেন। এছাড়াও দার্জিলিং জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক অরূপ বিশ্বাস, পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব এবং তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দিয়েও পাহাড়ে একাধিক সভা করিয়েছে শাসক দল।

যা আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দার্জিলিং লোকসভা আসন দখলে তাদের কাছে অনেকটাই অ্যাডভ্যান্টেজ হবে বলে মনে করছে ঘাসফুল শিবির। তবে প্রচারে একে অপরকে টক্কা দিলেও শেষ পর্যন্ত দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্র কার দখলে থাকে তা দেখবার জন্য অপেক্ষা করতেই হবে আগামী 23 মে পর্যন্ত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!