এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > দীপা দাশমুন্সির নাম প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা হতেই আবেগের জনবিস্ফোরণ রায়গঞ্জে, লড়াই কিন্তু জমে গেল

দীপা দাশমুন্সির নাম প্রার্থী হিসাবে ঘোষণা হতেই আবেগের জনবিস্ফোরণ রায়গঞ্জে, লড়াই কিন্তু জমে গেল


আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রায়গঞ্জ লোকসভা আসনে বাম এবং কংগ্রেসের মধ্যে জোট হলেও তারা প্রার্থী হিসেবে কংগ্রেসের দীপা দাশমুন্সিকেই চায় বলে প্রথম থেকে হাইকমান্ডের কাছে দাবি জানিয়েছেন জেলার কংগ্রেস কর্মীরা। সেইমতো রাজ্যে বাম ও কংগ্রেসের জোট ভেস্তে যাওয়ায় এই রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে কংগ্রেসের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা হয়েছে প্রয়াত প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির স্ত্রী দীপা দাশমুন্সির নামই। আর এই নাম ঘোষণা হওয়ার সাথে সাথেই প্রবল উচ্ছাস ও আনন্দে ফেটে পড়ে উত্তর দিনাজপুর জেলার কংগ্রেস কর্মীরা।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতেই কালিয়াগঞ্জের শ্রীকলোনীর বাড়িতে পৌঁছন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি। আর বুধবার সকাল হতে না হতেই সেখানে প্রচুর কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা পৌঁছে যান। এরপরই বাড়ি থেকে বেরিয়ে প্রথমেই জেলার ঐতিহ্য মন্ডিত জাগ্রত বয়রা কালী মন্দিরে পূজা দীপাদেবী।

এদিকে কালী মন্দিরে পুজো দিয়ে কালিয়াগঞ্জে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে মিলিত হয়ে কালিয়াগঞ্জের কংগ্রেস বিধায়ক প্রমথনাথ রায় এবং কালিয়াগঞ্জের কংগ্রেস সভাপতি সুজিত ঘোষ সহ অন্যান্যদের সঙ্গে প্রায় এক ঘন্টা ধরে বৈঠক করেন তিনি।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, এরপরই রায়গঞ্জের জেলা কার্যালয়ে আসেন দীপা দাশমুন্সি। আর সেইখানে অপেক্ষারত জেলা কংগ্রেসের প্রচুর কর্মী সমর্থক এবং নেতৃত্বদের সঙ্গে দেখা করে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের এই হেভিওয়েট কংগ্রেস প্রার্থী। আর এই সাংবাদিক সম্মেলনে নিজের প্রয়াত স্বামী প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির নাম নিয়েই নিজের বক্তব্য শুরু করেন দীপাদেবী।

তিনি বলেন, “রায়গঞ্জ আর প্রিয়রঞ্জন সমার্থক। জেলার উন্নয়নে ওনার বহু অবদান রয়েছে। তাই প্রিয়দার দেখানো পথেই এই লড়াই হবে।” অন্যদিকে বিগত 2014 সালের লোকসভা নির্বাচনে এই রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে জয়ী সিপিএমের মহম্মদ সেলিমের নাম না করেও এদিন তাকেও কটাক্ষ করেন দীপা দাশমুন্সি।

এবারের নির্বাচনে জেতার ক্ষেত্রে তাদের মূল এজেন্ডা কি হবে? এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমরা কেন্দ্রে এবং রাজ্যে ক্ষমতায় নেই। হয়ত অনেকেই আমাদের দলের সিম্বলে জিতেছিলেন, কিন্তু পরে অন্য কোথাও চলে গিয়েছেন। তবে উত্তর দিনাজপুরের মানুষ আজও আমাদের সঙ্গে আছেন। এবারের নির্বাচনে আমাদের অন্যতম ইস্যু হবে এইমস। এই জেলার মানুষ জানে কারা এখানে এইমস করতে দেয়নি। তাই কংগ্রেস যদি ক্ষমতায় আসে তাহলে রায়গঞ্জে এইমস হবে।”

সব মিলিয়ে এবার রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে দলীয় প্রার্থী হিসেবে দীপা দাশমুন্সির নাম ঘোষণা হতে না হতেই রায়গঞ্জের মাটিতে পা রাখতেই দলীয় কর্মীদের আবেগ ও উচ্ছাসে ভেসে গেলেন সেই প্রয়াত প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির স্ত্রী। তবে শেষ পর্যন্ত আগামী 23 মে ভোটবাক্স খোলার পর কংগ্রেস কর্মীদের দীপা দাশমুন্সিকে ঘিরে এই আবেগ-উচ্ছ্বাস থাকে কিনা এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!