এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সংসদ দেবের উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গের ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান গ্রহণ করল কেন্দ্রীয় সরকার

সংসদ দেবের উদ্যোগে পশ্চিমবঙ্গের ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান গ্রহণ করল কেন্দ্রীয় সরকার

পশ্চিমবঙ্গের ঘাটালকে বন্যার প্রকোপ থেকে বাঁচাতে জবরদস্ত পরিকল্পনা করলো কেন্দ্রীয় সরকার। প্রাথমিক পর্যায়ে তাঁরা আপাতত রাজ্যসরকারের প্রকল্পটিতে মঞ্জুরি দিয়েছেন। এই প্রকল্পটি নিয়ে দীর্ঘদিন লেগেপড়ে যুদ্ধ করে গেছে রাজ্যসরকার। প্রতি বছরই প্রবল বন্যার জেরে নাস্তানাবুদ হতে হয় ঘাটালবাসীর। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই সমস্যার সমাধান দীর্ঘদিন ধরেই চেয়ে আসছিলেন। তবে বঙ্গের নেত্রীর নির্দেশেই ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কথা সংসদে তুলেছিলেন কেন্দ্রের সংসদ দেব।  বাংলা ভাষায় সেই প্রসঙ্গে বলা নিয়েও  তাকে তখন কম কটাক্ষ করা হয়নি! আজ কেন্দ্র সরকার এই প্রস্তাব গ্রহণ করে সেই সব নিন্দুকের মুখে ঝামা ঘষে দিলেন বলেই মত সংশ্লিষ্ট মহলের। কেন্দ্রীয়সরকার বহু টালবাহানাও করেছে একসময়ে এটা নিয়ে। অভিযোগে এমনটাই জানা গেছে বারবার। তবুও সব ঝড় পেরিয়ে এদিন প্রকল্পটি কেন্দ্রীয় সরকারের গ্রহণযোগ্যতা পেলো। এতে একরকম জয়ের হাসি ফুটলো রাজ্যসরকারের মুখে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

সম্প্রতি দিল্লির কেন্দ্রীয় জলসম্পদ মন্ত্রকের সচিবে নেতৃত্বে প্রকল্পগুলো নিয়ে বৈঠক করে সংশ্লিষ্ট পরামর্শদাতা কমিটি। সেখানেই নির্ধারিত হয় যে প্রাথমিকভাবে ঘাটালের মাস্টারপ্ল্যান ছাড়াও অন্যান্য ৬ টি রাজ্যেই এই সংক্রান্ত বিল পাস হবে। এর ভিতর পড়ছে পশ্চিমববঙ্গ সহ আরো চারটি রাজ্যে বন্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য গৃহীত প্রকল্প এনং অন্য দুটো রাজ্যের সেচ প্রকল্প। গৃহীত প্রকল্পগুলোর মাধ্যমে উপকৃত হবে প্রায় ১৪ লক্ষ মানুষ। এর পাশাপাশি বন্যা থেকে রেহাই দিতে প্রভাবিত এলাকার মানুষগুলোকে দেওয়া হবে ৪ লক্ষ একর জমি।

তবে ঘাটাল প্রকল্পের জন্য ব্যয় করা টাকার হিসাব পরিস্কারভাবে বলা না হলেও প্রাথমিক পর্যায়ের অনুমান, প্রকল্প বাবাদ ঘাটালের জন্য খরচা হতে পারে ২ হাজার কোটি টাকা। পশ্চিমবঙ্গের বন্যা নিয়ন্ত্রণ ছাড়াও তেলেঙ্গনা,মহারাষ্ট্র,বিহার,হিমাচলপ্রদেশ এবং পুদুচেরির মতো পাঁচটি রাজ্যের প্রকল্প গ্রহণ করতে চলেছে কেন্দ্রীয় জলসম্পদ মন্ত্রকের পরামর্শদাতা কমিটি। হায়দ্রাবাদ এবং সেকেন্দ্রবাদ লাগোয়া এলাকাবাসী সুবিধা পেতে চলেছে প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকার। এখন এইসব প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ কবে শুরু হয় সেদিকেই তাকিয়ে প্রকল্পের আওতায় আসা রাজ্যবাসীরা। এমনটাই জানা যাচ্ছে,রাজনৈতিক সূত্রের খবর থেকে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!