এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > দার্জিলিংয়ে দলনেত্রী ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করায় নতুন জোশে কাজ শুরু বিনয়-অনীতদের

দার্জিলিংয়ে দলনেত্রী ভূমিপুত্রকে প্রার্থী করায় নতুন জোশে কাজ শুরু বিনয়-অনীতদের

Priyo Bandhu Media

দার্জিলিংয়ের আসন থেকে তৃণমূল প্রার্থী হিসাবে অমর সিং রাইয়ের নাম ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই খুশীর জোয়ারে ভাসছে পাহাড় থেকে সমতল। বৃহস্পতিবার কোলকাতা থেকে ফিরেই ভোটের প্রার্থী হিসাবে প্রচার শুরু করে দেন অমর সিং।

দলীয়,সূত্রের খবর,সকাল ১০ টা নাগাদ বাগডোগরা বিমানবন্দরে নামতেই বাঁধনহারা উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন সমর্থকরা। তিনি আসবেন শুনে আগেই পাহাড় থেকে মোর্চা কর্মীসমর্থকরা বিমানবন্দরে ভীড় করতে শুরু করেন। মোর্চার পতাকা, দলীয় পতাকা নিয়ে তৃণমূল প্রার্থীর নামে শ্লোগান তোলে সমর্থকরা। পাহাড় থেকে কাতারে কাতারে কাতারে যেমন মানুষ আসেন তেমনি সমতল থেকেও জনগনের ঢল আসতে দেখা যায় বিমানবন্দরে।

প্রার্থীকে নিয় হুড খোলা জিপে করে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি তথা পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব,জিটিএ প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান বিনয় তমাং প্রচার শুরু করেন। বাগডোগরা থেকে ওই জিপের মাধ্যমে মোটর বাইক র‍্যালি শুরু করেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সদস্যরা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

দার্জিলিং মোড় পর্যন্ত ওই র‍্যালি হলেও অমর বাবুর জনভয়ে জনস্রোত ছিল দেখার মতো। শুধু তৃণমূল কংগ্রেস ও মোর্চার সমর্থক নয়,সাধারণ মানুষও রাস্তার দুপাশে জড়ো হয়ে তাঁকে স্বাগত জানায়। আমজনতার বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস সামলাতে গিয়ে মাঝেমধ্যে অমরবাবুকে কনভয়ে দাঁড় করাতে হয়। জনস্রোত দেখে গৌতম দেব বলেন,’মানুষের জমায়েত এবং উৎসাহ দেখে বোঝা যাচ্ছে প্রচারের প্রথম রাউন্ডেই আমরা এগিয়ে গিয়েছি।’

তারপর র‍্যালি শেষ করে গাড়িতে করে পাহাড়ের উদ্দেশ্য রওনা দেন। কার্শিয়াংয়ের গাড়ি থেকে নেমে হেঁটে প্রচার করেন অমরবাবু। সেখানেও মানুষের ভালোবাসা পান তিনি। এরপর কয়েকশো গাড়ির কনভয় নিয়ে যখন দার্জিলিং পৌছান তিনি,তখন বিকেল গড়িয়ে গিয়েছে। পাহাড়ে পৌছেও এদিন প্রচার শুরু করেন তিনি।

জিটিএ প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রথম থেকেই অমরবাবুর পাশে ছিলেম। হুড খোলা জিপের মধ্যে থেকেই কর্মী সমর্থকদের অভ্যর্থনা কুড়িয়েছেন তিনি। মানুষের বাঁধনহারা উচ্ছ্বাস দেখে তিনি বললেন,’আমি খুব খুশি। মমতা ব঩ন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে প্রার্থী করেছেন। তৃণমূলের সঙ্গে যৌথভারে নির্বাচনে লড়াই করছি।’

পাশাপাশি আরো বলেন,মোর্চা এবং তৃণমূল একসঙ্গে বসে নির্বাচনী রণকৌশল স্থির করবে। পাহাড় এবং সমতলের ইস্যু আলাদা হলেও মূল লড়াইটা আসলে বিজেপির সঙ্গে। তবে পাহাড়ের মানুষের সমর্থন নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই তার। তবে মোর্চার প্রধান দাবী পৃথক রাজ্য গোর্খাল্যান্ড যে ইস্যু হচ্ছে না তা এদিন পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিলেও পাহাড়ের মানুষদের পরিচয় নিয়ে লড়াই করার কথাই জানিয়ে দেয় দার্জিলিংয়ের প্রার্থী।

অমরবাবুর বক্তব্য,গোর্খাল্যান্ড এখন হওয়ার কোনো প্রশ্নই নেই। তবে মোর্চা এখানে নিজস্ব অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই করবে। তবে তিনি এটাও স্পষ্ট করে দেন যে,আইডেনটিটি এবং গোর্খাল্যান্ড এক নয়। তৃণমূলনেত্রী অমর সিংয়ের উপর যে ভরসা রেখেছেন,তিনি সেই মান রক্ষা করতে পারবেন বলেই আশা রয়েছে জোড়াফুলশিবিরের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!