এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দলীয় বিধায়ককে খুনের ছক কষা হচ্ছে অভিযোগ অপর এক বিধায়কের – জেনে নিন বিস্তারিত

দলীয় বিধায়ককে খুনের ছক কষা হচ্ছে অভিযোগ অপর এক বিধায়কের – জেনে নিন বিস্তারিত

এবারের বিধানসভায় বাদল অধিবেশনর শুরুর দিন থেকেই বিধানসভা সরগরম। বিভিন্ন বিষয়ে বিরোধীপক্ষরা সরকারের দিকে অভিযোগের আঙুল তোলে, অভিযোগ খন্ডাতে গিয়ে প্রায়শই দুইপক্ষের মধ‍্যে লাগে বাগবিতন্ডা।

এবার এই বাকবিতন্ডাকে কেন্দ্র করে বহরমপুর এর কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী রীতিমতো সাংবাদিক বৈঠক ডেকে ভরতপুরের কংগ্রেস বিধায়ক কমলেশ চট্টোপাধ্যায় কে খুনের পরিকল্পনার আশঙ্কা প্রকাশ করলেন।

এ ব্যাপারে মনোজ চক্রবর্তী ইঙ্গিত দিয়েছেন, সরকারী মদতে কমলেশ চট্টোপাধ্যায়ের নিরাপত্তারক্ষী তুলে নেওয়ার‌। তিনি অভিযোগ জানান, বিধানসভায় পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বাদানুবাদ এর পরের দিন থেকে কিছু না জানিয়েই ভরতপুরের কংগ্রেস বিধায়ক কমলেশ চট্টোপাধ্যায়ের সরকারি নিরাপত্তারক্ষীকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে মন্ত্রীর নির্দেশেই।

এই প্রসঙ্গে মনোজ বাবু আরো অভিযোগ জানান, গত 6 সেপ্টেম্বর বিধানসভায় শুভেন্দু অধিকারী ও কমলেশ চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে তীব্র বাদানুবাদ হয়। ব্যাপারটা এতো দূর গড়ায় যে মুখ্যমন্ত্রীকে পর্যন্ত ঘটনা সামাল দেবার জন্য ওয়েলে নামতে হয়। আর এই ঘটনার পরের দিন থেকেই কমলেশ চট্টোপাধ্যায় নিরাপত্তারক্ষী নিখোঁজ বলে জানাচ্ছেন তিনি। আর এর ফলেই আশঙ্কা দানা বেঁধেছে তাঁর মনে। প্রসঙ্গত, এই ঘটনায় জানা যায়, নদীয়া তৃণমূল বিধায়ক খুনের পর থেকেই নিরাপত্তারক্ষীদের ওপর নির্দেশ জারি করা হয়েছে আগাম না জানিয়ে তাদের ছুটি মঞ্জুর হবে না। তাহলে প্রশ্ন, কমলেশ চট্টোপাধ্যায় নিরাপত্তারক্ষী কোথায় গেলো কিছু না জানিয়ে ?

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

রীতিমতো হুঁশিয়ারি দিয়ে বহরমপুরে কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী এদিন বলেন, ‘কমলেশের কিছু হয়ে গেলে তার দায় সরকারকে নিতে হবে।’উল্লেখ্য, রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী এই মুহূর্তে মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূল পর্যবেক্ষক রূপে কাজ করছেন‌। আর তাই কংগ্রেস মহলের সন্দেহের সিংহভাগ তার দিকেই গেছে।

এই ঘটনায় এখনো পর্যন্ত সরকারি তরফ থেকে কোনো বিবৃতি পাওয়া যায়নি। এই অভিযোগের উত্তর দেওয়ার জন্য সরকার কি পদক্ষেপ নেয় তার দিকে তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!