এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আজ আদালতে বহু প্রতীক্ষিত ডিএ মামলার রায়, পাখির চোখ সব মহলের

আজ আদালতে বহু প্রতীক্ষিত ডিএ মামলার রায়, পাখির চোখ সব মহলের

দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান হতে চলেছে আজ। এমনটাই আশা করে আছেন সরকারি কর্মচারীরা। ডিএ মামলা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি আদালতে – দিন যত পেরিয়েছে মামলা জট পাকিয়েছে ততো। দফায় দফায় প্রতিবাদে মিছিল মিটিং করেছেন সরকারি কর্মচারীরা। ৩৮ বার শুনানির পর আজ ডিএ মামলার রায় ঘোষিত হতে চলেছে কলকাতা হাইকোর্টে। বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত ও বিচারপতি শেখর ববি শরাফের ডিভিশন বেঞ্চ আজ এই মামলার রায় দেবেন। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার ডিএ-র পরিমান বাড়িয়েছে। সেক্ষেত্রে কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যে সরকারি কর্মচারীদের বেতনের পার্থক্যও বেড়ে গিয়েছে প্রায় ৪৮% বলে বিভিন্ন মহলের দাবি।

উল্লেখ্য,রাজ্য সরকারি কর্মীদের সংগঠনের তরফ থেকে প্রথমে রাজ্য প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল বা ‘স্যাটে’ মামলা করা হয়। পাশাপাশি এই মামলার জল গড়ায় কলকাতা হাইকোর্ট পর্যন্ত। ২০১৬ সালে কেন্দ্র যখন ১২৫% হারে ডিএ দেয় তখন রাজ্যে ডিএ দেওয়া হত ৭৫% হারে। ডিএ-কে সেসময় ‘সরকারের দয়ার দান’ বলেই ব্যাখ্যা করেছিল ‘স্যাট’। এই প্রেক্ষিতে রাজ্য অর্থদপ্তরের এক কর্মচারী স্বপনকুমার দে হাইকোর্টে মামলা করেন। হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি নিশিথা মাত্রে এবং তপোব্রত চক্রবর্তীর ডিভিশন বেঞ্চে ৬ বার শুনানি হয় মামলাটির।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তারপর গতবছর অর্থাৎ ২০১৭ সালের ১৩ জুলাই কেসটি ‘লিস্টেড’ হয়। ওই দিন দুই বিচারপতি রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনেরাল কিশোর দত্তকে কেন নির্দিষ্ট সময়ে ডিএ দেওয়া হচ্ছে না তা তিন সপ্তাহের মধ্যে হলফনামা দিয়ে জানাতে বলেন। এরপর ডিএ নিয়ে বহুবার কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি হয়েছে আদালতে। রাজ্য সরকারকে একাধিকবার ভর্ৎসনার শিকার হতে হয়েছে। কেন্দ্রের তুলনায় রাজ্য সরকারের ডিএ-র পরিমান কম কেন? এ প্রশ্নকে ঘিরেও একাধিকবার রাজ্য সরকারকে তীব্র সমালোচিত হতে হয়েছে কোলকাতা হাইকোর্টে। এতো সমস্যা কাটিয়ে আজ দুপুর ১ টার রায় ঘোষিত হতে চলেছে মামলাটির। অপেক্ষার প্রহর গুনছেন রাজ্যের সরকারি কর্মচারীরা।

Top
Close
error: Content is protected !!