এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > স্যাটে ডিএ নিয়ে জোড়া মামলার শেষে কি দাঁড়ালো পরিস্থিতি? কবে হতে পারে রায়দান?

স্যাটে ডিএ নিয়ে জোড়া মামলার শেষে কি দাঁড়ালো পরিস্থিতি? কবে হতে পারে রায়দান?

আজ স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুন্যাল বা স্যাটে ডিএ সংক্রান্ত দু-দুটি মামলার কার্য ও শুনানি ছিল। প্রথম মামলাটি ছিল কনফেডারেশন অফ স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়ীজের করা এবং দ্বিতীয়টি সরকারি কর্মচারী পরিষদের। প্রথম মামলার ক্ষেত্রে শুনানি ‘প্রায়’ শেষ – আজ শুধু মামলাকারীদের তরফে ডিএ বৃদ্ধি সংক্রান্ত (১৪৮%) নথি জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

কিন্তু সেই মামলায় রাজ্য সরকার জানায় ইতিমধ্যেই এই নিয়ে রাজ্য সরকারের তরফে একটি ‘রিভিউ পিটিশন’ কলকাতা হাইকোর্টে করা হয়েছে। সেই সংক্রান্ত রিভিউ পিটিশন নাম্বার ও ট্যান (ট্রান্সফার অ্যাপ্লিকেশন নাম্বার) স্যাটের কাছে জমা দেওয়া হয়। যার বিরোধিতা করেন কনফেডারেশনের আইনজীবী।

তিনি স্পষ্ট জানান, স্যাটে শুনানি শেষ হয়ে যাওয়ার পর এই রিভিউ পিটিশনের অর্থ কি? কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশানুসারে এই মামলার রায়দান আগামী ১১ ই ডিসেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন হওয়া উচিত। এর পরিপ্রেক্ষিতে, রাজ্য সরকারের সেই আর্জি গ্রহণ করে স্যাটের বিচারপতিরা আগামী ৬ ই ডিসেম্বর পর্যন্ত রাজ্য সরকারকে সময় দেন কলকাতা হাইকোর্টের এই রিভিউ পিটিশনের অর্ডার আনার জন্য।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এর পরিপ্রেক্ষিতে, কনফেডারেশনের আইনজীবী জানতে চান – এই মামলার শুনানি স্যাটে শেষ, সেক্ষেত্রে যদি রিভিউ পিটিশন গ্রাহ্য হয় তাহলে তো ‘রি-ওপেন’ করতে হবে। স্যাটের বিচারপতিরা জানান, আমরা কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশনানুসারেই কাজ করব – কলকাতা হাইকোর্ট যদি আগামী ৬ তারিখের মধ্যে এই সংক্রান্ত কোন আদেশ দেয়, আমরা সেই অনুযায়ী চলবে। নাহলে এই মামলার রায়দান করে দেওয়া হবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই।

অন্যদিকে, সরকারি কর্মচারী পরিষদের মামলার শুনানিতে, মামলাকারীদের তরফে দুটি মামলা একত্রে শুনানির আর্জি জানানো হয়। কিন্তু স্যাটের বিচারপতিরা দুটি মামলা ‘ট্যাগ’ করতে রাজি হন নি। এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন আগামী ৪ ঠা ফেব্রুয়ারী ধার্য করেছেন। একইসাথে জানানো হয়েছে, তার আগেই যদি কনফেডারেশনের মামলার রায়দান হয়ে যায় তাহলে তা এই মামলার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে।

এই প্রসঙ্গে আমরা সরকারি কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিস শীলের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমাদের আইনজীবী আজ জানতে চান – এই মামলায় ‘এফিডেফিট এক্সচেঞ্জ’ হয় নি, তাহলে কি পরবর্তী ক্ষেত্রে এই মামলার দীর্ঘসূত্রিতা বাড়তে পারে? সেখানে স্যাটের তরফে জানানো হয়েছে আগামী ৪ ঠা ফেব্রুয়ারী এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে – যেহেতু এফিডেফিট এক্সচেঞ্জ হয় নি, তাই তা আর নতুন করে গুরুত্ত্ব পাবে না।

দেবাশিসবাবু আরও জানান, আমাদের আজকের যা শুনানি হয়েছে – তাতে করে আশা করা যায় আগামী শুনানিতেই – এই মামলার শুনানি পর্ব শেষ হয়ে যাবে। তবে স্যাটের বিচারপতিরা একইসঙ্গে জানিয়ে দিয়েছেন – আমাদের সেই শুনানির আগে অন্য মামলায় যদি রায়দান হয়ে যায়, তাহলে সেই রায় আমাদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে। সুতরাং, আশা করা যেতেই পারে আমাদের আগামী শুনানির মধ্যেই রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য ডিএ সুখবর সামনে চলে এল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!