এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ডিএ মামলা নিয়ে কোনো ঝুঁকি না নিয়েই সুপ্রিম কোর্টের পথ প্রশস্ত করে রাখছেন সরকারি কর্মচারীরা

ডিএ মামলা নিয়ে কোনো ঝুঁকি না নিয়েই সুপ্রিম কোর্টের পথ প্রশস্ত করে রাখছেন সরকারি কর্মচারীরা

রাজ্যের মহার্ঘ ভাতা মামলায় হাইকোর্টের নির্দেশ নিয়ে আর কোনো জটিলতা চাইছেন না সরকারি কর্মচারীদের একাংশ। আর তাই যদি রাজ্য সরকার কোলকাতা হাইকোর্টের এই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার জন্য আগেভাগেই সমস্ত প্রস্তুতি নিয়ে রাখছে রাজ্য সরকারি কর্মীদের সংগঠন কনফেডারেশন অব স্টেট গভর্নমেন্ট এমপ্লয়িজ।

সূত্রের খবর,  ইতিমধ্যেই আইনজীবীদের সঙ্গে এই ব্যাপারে আলোচনাও শুরু করে দিয়েছে। এমনকী আগামী সোমবারই যাতে সুপ্রিম কোর্টে এব্যাপারে ক্যাভিয়েট দাখিল করা যায় তার চেষ্টাও চালাচ্ছেন সংগঠনের সদস্যরা। তবে এই সব কিছু যদি রাজ্য সরকার সুপ্রিম কোর্টে যায় সেই কারনেই। কিন্তু এখনও পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী, হাইকোর্টের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে রাজ্যের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

আর এই না যাওয়ার পেছনে যথেষ্ট কারনও রয়েছে। কেননা হাইকোর্ট কেন্দ্রর মত রাজ্যকেও যে একই হারে ডিএ দিতে হবে তেমন কোনও নির্দেশ দেয়নি। ফলে রাজ্যের ঘাড়ের ওপর কোনো অতিরিক্ত বোঝা চাপবার সম্ভাবনাও নেই। তবে এই ডিএর বিষয়ে স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনালকে এই ব্যপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্ব দিয়েছে হাইকোর্ট। জানা গেছে; আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে রাজ্য সরকারকে স্যাটের কাছে হলফনামা দিয়ে তাঁদের সুনির্দিষ্ট বক্তব্য জানাতে হবে। পাশাপাশি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে আবেদনকারীদেরও এই স্যাটের কাছে হলফনামা জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আর এইসব কার্যকলাপ শেষ হলেই আগামী দুই মাসের মধ্যে এই মামলার নিষ্পত্তি করতে বলা হয়েছে স্যাটকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে,এই প্রক্রিয়াতেই স্পষ্ট হয়ে যাবে যে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশের ভিত্তিতে আগামী বছর থেকে রাজ্য সরকারি কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি হবে কি না? অনেকের মতে, এই ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ যদি কার্যকর হয় তবে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কর্মীদের মধ্যে বেতনের ফারাক অনেকটাই কমে যাবে বলে। তাছাড়াও মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী জানুয়ারি মাস থেকে রাজ্য সরকারি কর্মীদের ২৫ শতাংশ ডিএ বৃদ্ধি হয়েছে। কিন্তু তাতে করেও কেন্দ্রের সাথে রাজ্যের কর্মীদের  বেতনের বৈষম্য থেকেই যাচ্ছে। এখন এই বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর হলে অবশ্য কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দেওয়ার প্রশ্নে স্যাট কী সিদ্ধান্ত নেয় সেদিকেও তাকিয়ে অনেকে। পাশাপাশি এই ব্যাপারে স্যাটের কাছে সরকার তাঁদের কোন যুক্তি তুলে ধরে সেদিকেও ডিএ ভবিষ্যত ঝুলে রয়েছে। সব মিলিয়ে ডিএ মামলায় রায় বেরোলেও এখন স্যাটই ভরসা সকলের।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!