এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এবার বিজেপি কর্মীদের কাটমানি নেওয়া নিয়ে সরব তৃণমূল, শোরগোল উত্তরবঙ্গে

এবার বিজেপি কর্মীদের কাটমানি নেওয়া নিয়ে সরব তৃণমূল, শোরগোল উত্তরবঙ্গে

লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের পরাস্ত হওয়ার কারণ হিসেবে শাসক দলের অনেক নেতা কর্মীরা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে কাটমানি নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছিল। পরবর্তীতে সমালোচকদের সেই অভিযোগ গ্রহণ করে কেউ যাতে কোনো দুর্নীতির সাথে যুক্ত না থাকে, তার জন্য দলীয় জোটের সকল কাউন্সিলারদের কড়া নির্দেশ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলীয় কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে এই নির্দেশ দেওয়া নিয়ে পাল্টা “তৃণমূল দুর্নীতি করছে এবং তাদের তৃণমূলের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ যে সত্যি” এই ব্যাপারে দাবি করতে শুরু করে বিজেপি। কিন্তু এবার সেই অভিযোগকারী বিজেপির বিরুদ্ধেই উঠল কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ। যে ঘটনা এখন প্রবল চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে আলিপুরদুয়ারে।

জানা গেছে, আলিপুরদুয়ারের লতাবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের ইউনিয়ন একাডেমির বুদ্ধমন্দির থেকে ভায়া হ্যামিল্টনগঞ্জ লতাবাড়ি মডেল স্কুল পর্যন্ত আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের দুই কিলোমিটার রাস্তা মেরামতের জন্য মোট বরাদ্দ ধরা হয়েছিল 39 লক্ষ্য 27 হাজার টাকা।

গত তিন মাস আগেই এখানকার এক কিলোমিটার রাস্তার কাজ শেষ হয়ে গেলেও এখন বাকি এক কিলোমিটার রাস্তার কাজ চলছে। আর এই কাজ চলার মাঝেই এবার স্থানীয় তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্য পদ্মা রায় অভিযোগ করলেন যে, এই কাজের জন্য হ্যামিল্টনগঞ্জের একটি ক্লাবের কিছু বিজেপি কর্মী সমর্থক কাটমানি চাইছেন।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে পদ্মাদেবী বলেন, “ওই দীর্ঘ রাস্তার এক কিলোমিটার রাস্তা মেরামতের কাজ শেষ হওয়ার পর হ্যামিলটনগঞ্জে একটি ক্লাবের কিছু বিজেপি সমর্থক নিম্নমানের কাজের অভিযোগ তুলে কাজের বরাত দেওয়া ঠিকাদারের কাছে কাটমানি চেয়েছেন। যার ফলে সংশ্লিষ্ট কাজের ঠিকাদার ওই রাস্তার কাজ সময়মতো শেষ করতে পারছেন না। রাস্তার কাজ যদি নিম্নমানের হয়, তাহলে কাজের শুরুতে কেন বিজেপি সমর্থকরা অভিযোগ করলেন না! বাসিন্দাদের যাতায়াতের সুবিধার্থে সরকারি রাস্তার কাজে কাউকে কোনো কাটমানি দেওয়া হবে না।”

আর বিজেপির কর্মী সমর্থকদের বিরুদ্ধে স্থানীয় তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্যা এই অভিযোগ করায় এখন রীতিমত অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির। যদিও বা এই গোটা ঘটনায় তাদের যোগ থাকার কথা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করে দিয়েছেন আলিপুরদুয়ার জেলা বিজেপির সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা। তিনি বলেন, “হ্যামিল্টনগঞ্জে আমাদের কোনো সমর্থক বা কর্মী জেলা পরিষদের রাস্তার কাজে ঠিকাদারের কাছে কাটমানি চাওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন। আসলে ওই রাস্তার নিম্নমানের কাজের ঘটনাকে চাপা দিতেই আমাদের দলের কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হচ্ছে।”

কিন্তু স্থানীয় তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্যা বিজেপির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তুলেছেন, তা যদি সত্যি হয় তাহলে তৃণমূলের মত বিজেপিরও খারাপ দশা আসতে বেশি সময় লাগবে না বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। কিন্তু যেহেতু তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্যা

এই অভিযোগ করছেন, তাই অনেকেই বলছেন, নিজেদের পিঠ বাঁচাতে এবং বিজেপির বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতেই স্থানীয় তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্য পরিকল্পনামাফিক এই অভিযোগ করতে শুরু করেছেন। তবে কোন কথাটা সত্যি! কার দাবির পেছনে যথাযোগ্য যুক্তি রয়েছে! এখন সেই রহস্য সন্ধানেই নজর সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!