এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বর্ধমান > কাটমানি নিয়ে অবৈধ নির্মাণ ও চাকরির প্রতিশ্রুতি! হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে পোস্টার

কাটমানি নিয়ে অবৈধ নির্মাণ ও চাকরির প্রতিশ্রুতি! হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়কের বিরুদ্ধে পোস্টার

লোকসভা নির্বাচনে, দলের খারাপ ফলাফলের পরে, ঘুরে দাঁড়াতে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘কাটমানি’ ফেরতের নিদান দেন। কিন্তু বর্তমানে, নিত্যদিন কাটমানির অভিযোগে দল হিসাবে তৃণমূলকে বেশ বিপাকে পড়তে হচ্ছে। বারবার সাবধান করেও কাঠমানি প্রসঙ্গকে এড়ানো যাচ্ছে না। প্রতিদিন উঠে আসছে একের পর এক নিত্য-নতুন অভিযোগ। শুধুমাত্র যে বিরোধী দলের অভিযোগ এই নিয়ে তা নয়, শাসকদলের অন্দরমহল থেকেও কাটমানির অভিযোগ সমানভাবে করা হচ্ছে।

আর এবার কাটমানির অভিযোগ কাটোয়ার বিধায়ক তথা পৌরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, শনিবার সকালে পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়ায় একটি পোস্টার চোখে পড়ে‌। যে পোস্টারে পুরসভার চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়কে কাটমানির অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, কাটমানি নিয়ে বেআইনি নির্মাণের অনুমতি ও অবৈধ চাকরি দেওয়ার। স্থানীয় সূত্রে খবর, কাটোয়া পৌরসভার 6 নম্বর ওয়ার্ডে নিচু বাজারে একটি জুতার দোকানের ভেতর অবৈধ নির্মাণ কে কেন্দ্র করে কিছুদিন আগেই পোস্টার পড়ে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

জানা যায়, পুরসভার চেয়ারম্যান দোকানের মালিকের কাছে কাটমানি খেয়ে অবৈধ নির্মাণে সহযোগিতা করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। আর এবার পোস্টার পড়েছে, স্থানীয় এক যুবককে পৌরসভার অস্থায়ী পদে বহাল করা নিয়ে। অভিযোগ করা হচ্ছে, এই অস্থায়ী পদটি কাটমানির বদলে দেওয়া হয়েছে স্থানীয় এক যুবককে। যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়। তবে, কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে গিয়ে বিধায়ক হয়ে, এবার নিজের গড়েই এই অভিযোগের ভিত্তিতে তিনি বড়সড় অস্বস্তিতে পড়েছেন বলে বিরোধীদের দাবি।

এদিন রবীন্দ্রনাথবাবু স্পষ্ট জানান, ‘ওই যুবক ইঞ্জিনিয়ারিং পাস। তাঁর সার্টিফিকেট রয়েছে। তাই যোগ্য বিবেচনা করে নিয়োগ করা হয়েছে। চাকরির জন্য কোনরকম টাকা-পয়সা লেনদেন হয়নি।’ সাথে তিনি এও জানান, যে অবৈধ নির্মাণ চলছিল, সেটি অবিলম্বে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে আগেই এবং দোকানের মালিককে প্রামাণ্য নথিপত্র পুরসভার জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। তবে এই ঘটনায় তৃণমূল স্থানীয় নেতৃত্বের দাবি, এলাকায় প্রভাব বিস্তার করতে বিরোধীদল ইচ্ছাকৃতভাবে দলের বদনাম করার জন্য এ ধরনের কাজ করছে।

Top
error: Content is protected !!