এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > সাক্ষীদের বয়ানে অসঙ্গতি, মৃতের পেটে মদ – তৃণমূল কর্মী খুনে অবশেষে জামিন পেলেন বাম নেতারা

সাক্ষীদের বয়ানে অসঙ্গতি, মৃতের পেটে মদ – তৃণমূল কর্মী খুনে অবশেষে জামিন পেলেন বাম নেতারা

পঞ্চায়েত নির্বাচন পর্বে তৃণমূল কর্মী খুনের জেরে গ্রেফতার হয়েও মুক্তি পেয়ে গেলেন বাম কর্মচারী সংগঠনের সমর্থক অনিমেষ দাশ। গতকাল কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি ও বিচারপতি রবি কৃষণ কাপুরের ডিভিশন বেঞ্চ তাঁর জামিন মঞ্জুর করল। থানায় দাখিল হওয়া এফআইআরের তথ্য থেকে জানা গিয়েছে,পঞ্চায়েত ভোটের সময় তৃণমূল কর্মী উজ্জ্বল ও সুশীল রায় হাবরা থানার আওতাধীন জোসুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বুথে স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস নেতা জাকির হুসেনের সঙ্গে দেখা করতে যান।

দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেই সময়, হঠাৎ করেই বুথে হামলা হয়। তার জেরে ওই দুজনের মৃত্যু হয়। একজনের ঘটনাস্থলে এবং অন্যজনের হাসপাতালে মৃত্যু হয়। বিকাল চারটে নাগাদ উৎপল সুর নামের এক ব্যক্তি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তার উপর ভিত্তি করে পুলিশ ওদিনই রাত ১১ টা নাগাদ পুলিশ সরকরি কর্মী অনিমেষবাবুকে পাকরাও করে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অনিমেষবাবুর পক্ষের আইনজীবী উদয়শঙ্কর চট্টোপাধ্যায় আদালতে যুক্তিতে জানিয়েছিলেন, নিম্ন আদালতে দাখিল হওয়া চার্জশিটে যেসব সাক্ষীর বয়ান রয়েছে, তাদের বয়ান এক এক সময়ে একরকম। এছাড়া প্রচুর অসঙ্গতিও রয়েছে বয়ানে। ফলত বয়ান বিশ্বাসযোগ্য নয় – এমনটাই দাবী তুললেন তিনি। তাছাড়া অন্য এলাকার লোক হওয়া সত্ত্বেও ওই দুজন ব্যক্তি ভোটগ্রহন কেন্দ্র কী করছিলেন তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন। এর পাশাপাশি ময়না তদন্তের রিপোর্টে এক মৃতের পেটে মদ পাওয়া গিয়েছে। মূলত এসব যুক্তির কোনো সদুত্তর পাওয়া যায়নি। এই প্রক্ষিতেই আবেদনকারীর জামিন মঞ্জুর করতে বাধ্য হল বেঞ্চ। প্রসঙ্গত, ১০৬ দিন অনিমেষ দাশ হাজতবাস করলেন এই ঘটনার অভিযুক্ত হিসাবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!