এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বামফ্রন্টের দেখানো পথেই বিধায়কদের মাছে-ভাতে করে রাখতে বিশেষ উদ্যোগী সরকার

বামফ্রন্টের দেখানো পথেই বিধায়কদের মাছে-ভাতে করে রাখতে বিশেষ উদ্যোগী সরকার

Priyo Bandhu Media

”মত্‍স্য উন্নয়ন নিগমের মাছ চাষের কথা শুনে বিধায়করা অনেক দিন ঘরেই মাছ খাওয়ার আবদার করছিলেন। তাঁদের আবদার মেনেই মাছ বিলি করা হল এই প্রথম। এ বার থেকে প্রতি বছর বিতরণ করব।” এদিন বিধানসভা অধিবেশনের শেষে মৎস বিলি করে এমনটাই জানালেন তৃণমূল মৎস মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ। এদিন বিধানসভা অধিবেশনের শুরুতেই স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ”আজ মত্‍স্য দফতর থেকে মাছ দেওয়া হবে। সকলে মাছ নিয়ে যাবেন।” আর এরপরেই অধিবেশন শেষ হতেই শুরু হয় ইলিশ ও রুই মাছ বিতরণ। জানা গেছে বিধায়কদের জন্য বাংলাদেশ থেকে আনানো হয়েছিল ১ কেজি ওজনের ইলিশ। সকলের বরাতে যদিও ইলিশ জোটে নি। ইলিশ শেষ হওয়ার পর বিতরণ করা হয় রাজ্য মৎস উন্নয়ন নিগমের অধীনস্ত বাঁকুড়ার কৃষ্ণবাঁধের জলাশয়ে চাষ করা রুই। এর আগে বাম জামানায় মৎসমন্ত্রী কিরণময় নন্দের উদ্যোগে মৎস বাজেটের দিন মাছ ভাজা খাওয়ানোর রেওয়াজ চালু ছিল যদিও তা পরে বন্ধ হয়ে যায়। এদিন সিপিএমের রাজ্য সম্মেলনের কারণে বিধানসভায় তারা কেউ উপস্থিত ছিলেন না। মাছ না নিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যান বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিকে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এদিন তাঁর তাদের ইলিশটি বিলি করেন দফতরের কর্মীদের। জানা গেছে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বিধানসভা ক্যান্টিনে ভাজিয়ে তাঁর ভাগের মাছটি ঘরেতেই বিলি করেন। বহরমপুরের বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী বিধায়ক আবাসনের রান্নাঘরে পৌঁছে দেন তাঁর প্রাপ্ত ইলিশ মাছটি এবং ইলিশের স্বাদ পুরোপুরিভাবে উপভোগ করেছেন তিনি। সূত্রের খবর, এদিনের মাছ বিলিতে খুশি উপস্থিত বেশিরভাগ বিধায়ক।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!