এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলকে আটকাতে বিজেপিকে সমর্থন করে দলীয় শাস্তির মুখে পড়তে চলেছেন সিপিএমের জয়ীরা

তৃণমূলকে আটকাতে বিজেপিকে সমর্থন করে দলীয় শাস্তির মুখে পড়তে চলেছেন সিপিএমের জয়ীরা

পঞ্চায়েত বোর্ড গঠনের ক্ষেত্রে গুরুত্ত্বপূর্ন পদ পাওয়ার ‘লোভে’ বিজেপি বা তৃণমূলের সঙ্গে সমঝোতায় আসতে চাইছে সিপিএমের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা। কোথাও বিজেপিকে রুখতে বামেরা শাসকদলের হাত ধরছে। , কোথাও আবার তৃণমূলকে ঠেকাতে কংগ্রেসের সঙ্গে এক ছাতার তলায় আসছে – এমনটাই অভিযোগে জানা গিয়েছে।

এরা সংখ্যা গরিষ্ঠ না হলেও বেশ কয়েকটা উদাহরণ সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। এর জেরে রীতিমতো অস্বস্তিতে পড়েছে বাম শীর্ষ নেতৃত্ব। এই নিয়ে রীতিমত শোরগোলও পরে গেছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটে বলে সূত্রের খবর। সংশ্লিষ্ট জেলা নেতৃত্বের কাছে এই ইস্যুতে রিপোর্ট জমা করতেও বলা হয়েছে বলে জানা গেছে।

দফায় দফায় বামেদের পঞ্চায়েতের জয়ী সদস্যদের বিরোধীদের সঙ্গে সমঝোতার খবর সামনে আসায় ক্ষুব্ধ আলিমুদ্দিন কর্তারা। তাঁদের তরফ থেকে এই ইস্যুতে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। ইতিমধ্যে জেলা কমিটির সদস্য সহ বেশ কয়েকজন প্রার্থীকে দল থেকে অপসারণও করা হয়েছে।

তবে এই নিয়ে এতদিন কার্যত মুখে কুলুপ এঁটে ছিলেন সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসুরা। কিন্তু, এদিন শহরে এসেই সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি এ ব্যাপারে নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিলেন। দলের নির্দেশকে অমান্য করে যারা বিজেপি বা তৃণমূলের সঙ্গে যোগ দিয়ে পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন করছে, তাদের বিরুদ্ধে দল অবিলম্বে শাস্তিযোগ্য বিধান নিশ্চিত করবে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ক্ষমতা দখলের উদ্দেশ্য নিয়ে বিরোধীদের সঙ্গে কোনো আপস নয় – এমনটাই কড়া ভাষায় জানিয়ে দিলেন ইয়েচুরি। সঙ্গে তিনি এটাও জানান, বিজেপি এবং তৃণমূল ক্ষমতা দখলের আশায় একে অপরের ঝান্ডা ধরেছে। অন্যদিকে একটি আসনে জয়ী হয়েও রাতারাতি হিসাব পাল্টে ফেলেছে বামফ্রন্ট – অথচ, এ ব্যাপারে প্রকাশ্যে কিছু স্বীকার করতে পারছে না তৃণমূল বা বিজেপি।

তিনি এদিন আরো জানান, গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনের ক্ষেত্রে বাস্তব পরিস্থিতির সাপেক্ষে কিছু সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন নির্বাচিত প্রার্থীরা। ১০ আসন বিশিষ্ট কোনও পঞ্চায়েতে যদি বাম, বিজেপি ও তৃণমূল যথাক্রমে তিন, তিন এবং চারটি আসন পায় তাহলে প্রধান নির্বাচনের বাধ্যতামূলক পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে অনেক সময় এই ধরনের অবাঞ্ছিত জোট তৈরি করেন জয়ীরা।

তবে তিনি সাফ জানিয়ে দিলেন, বোর্ড গঠনের ক্ষেত্রে বামেদের তরফ থেকে কোনো প্রার্থী যদি বিজেপি বা তৃণমূলের হাত ধরে তবে তাকে শাস্তির জন্য তৈরি থাকতে হবে। আর বামফ্রন্টের দলীয় লাইন মেনে শুধুমাত্র গণতান্ত্রিক এবং ধর্মনিরপেক্ষ দলগুলোর সঙ্গেই প্রয়োজনে আসন রফা করার নির্দেশ দিলেন তিনি।

রাজ্য কমিটির বৈঠকে বিজেপিকে রুখতে জাতীয় স্তরে তৃণমূলের জোট গঠনের উদ্যোগের প্রেক্ষিতে রাজ্যে সিপিএমের রণনীতি কী হবে তা নিয়েও আলোচনা করবেন সীতারাম ইয়েচুরি বলে জানা গেছে। টানা চার ঘন্টার অধিবেশন লোকসভা ভোটে সিপিএম কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বাঁধবে না কি একক লড়াই করলেই বেশি লাভবান হবে সে বিষয়েও সঠিক দিশা দেবেন তিনি বলে আশা বঙ্গ-সিপিএমের শীর্ষ নেতৃত্ত্বের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!