এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের পাশাপাশি বনধে জনজীবন স্বাভাবিক রাখার আহ্বান জানিয়ে জল্পনা বাড়ালেন সূর্য্যকান্ত মিশ্র

তৃণমূলের পাশাপাশি বনধে জনজীবন স্বাভাবিক রাখার আহ্বান জানিয়ে জল্পনা বাড়ালেন সূর্য্যকান্ত মিশ্র

এবার বিজেপির বনধের বিরোধীতায় শুধু তৃনমূল নয়, জনজীবন সচল রাখার আহ্বান জানালেন বাম নেতারাও। উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাড়িভিটের অশান্তিতে আজ রাজ্যজুড়ে ১২ ঘন্টার বনধ ডেকেছে বিজেপি। সর্বতোভাবে সেই বনধকে রুখে দিতে রাজ্যের পক্ষ থেকে যেমন নেওয়া হয়েছে প্রশাসনিক ব্যাবস্থা ঠিক তেমনই দলীয়ভাবেও তৃনমূল কংগ্রেসও পথে নেমেছে। এবার বিজেপির সেই বাংলা বনধ প্রত্যাখান করতে রাজ্যের মানুষের কাছে সরাসরি আবেদন জানানোর পাশাপাশি পূর্বঘোষিত যাবতীয় রাজনৈতিক কার্যকলাপ যাতে স্থগিত না হয় সেইকারনে দলের কর্মীদের নির্দেশ দিল আলিমুদ্দিন স্ট্রীট।

মঙ্গলবার এক সাংবাদিক বৈঠকে এই বনধকে ঘিরে বিজেপি এবং তৃনমূলের মধ্যে যে চাপানউতোর চলছে তার তীব্র সমালোচনা করেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। তিনি বলেন, “বিদেশে বসে জলঘোলা করছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। আর সেই ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমেছে বিজেপি। দু’পক্ষই বাহুবলের আস্ফালন দেখাচ্ছে। আসলে এগুলি সিনেমার ফাইটের মতো। শ্যুটিংয়ের বাইরে ওরা দু’পক্ষই একই জায়গাতে রয়েছে”। এক কথায় এদিন ফের সেই তৃনমূল-বিজেপি সমঝোতারই অভিযোগ করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র। তার জন্য এদিন কারনও দর্শান তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না – তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

গতকাল, শিলিগুড়িতে বামেদের বিক্ষোভ মিছিলে মুখ্যমন্ত্রীর কুশপুতুল পোড়ানোর আগেই পুলিশ তা জোর করে কেড়ে নিলেও সেই একই দিনে ধর্মতলায় বিজেপিকে কুশপুতুল পোড়াতে দেওয়া হয়। এদিন তা নিয়ে রাজ্য এবং কেন্দ্রের শাসকদলকে কটাক্ষ করেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক। পাশাপাশি তৃনমূল বিজেপির এই বনধের বিরোধীতা করলেও কেন চুপ করে বসে থাকবে সিপিএম? আর তাই এই বনধে যাতে সিপিএম বিজেপি সমঝোতার অভিযোগ না তুলতে পারে তৃনমূল তাই শহর পেট্রপণ্য ও বিদ্যুতের মাশুল হ্রাসের দাবিতে কোলকাতার সিইএসসি’র সদর দপ্তরের সামনে জমায়েতের কর্মসূচি নিয়েছে সিপিএম।

শুধু তাই নয়, বিজেপির ডাকা এই বনধের দিনে সিপিএম সমর্থিত শিক্ষক সংগঠন এবিটিএর সমাবেশও করা হবে রানি রাসমণি অ্যাভিনিউয়ে। এছাড়াও দলীয় সূত্রে জানা গেছে যে, বাম গণসংগঠনগুলির যৌথ মঞ্চ বিপিএমও’র ব্যানারে শুরু হওয়া ‘অধিকার যাত্রা’ কর্মসূচিও জেলাগুলিতে পূর্ব নির্ধারিত সূচি মোতাবেক পালন করা হবে। তবে এই ইসলামপুর-কাণ্ড নিয়ে যখন বনধের রাস্তায় রয়েছে বিজেপি ঠিক তখন গতকাল এই ঘটনায় কলকাতা এবং জেলাগুলিতে পথে নেমে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করল বাম ছাত্র সংগঠনগুলি।

তাঁদের দাবি, দাড়িভিটে গুলিতে দুই ছাত্রের মর্মান্তিক মৃত্যুর জন্য প্রকৃত দোষীদের চিহ্নিত করতে বিচারবিভাগীয় তদন্ত এবং স্কুলে শিক্ষক নিয়োগে বেনিয়মের কারনে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ইস্তফা দিতে হবে। সব মিলিয়ে একদিকে ইসলামপুর কান্ডে শাসক তৃনমূলের বিরোধীতা অন্য দিকে এই ঘটনায় বিজেপি বনধের বিরোধীতা করে তৃনমূল বিজেপি সমঝোতাকে প্রকাশ্য এনে খবরের শিরোনামে উঠে আসতে চাইছে আলিমুদ্দিন স্ট্রীটের নেতারা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!