এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান সংখ্যালঘুদের যা করতে বললেন জানলে চমকে যাবেন!

শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান সংখ্যালঘুদের যা করতে বললেন জানলে চমকে যাবেন!

শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের চেয়ারম্যান ওয়াসিম রেজভির  মুক্তমনা হিসাবে বেশ পরিচিতি আছে রাজনৈতিক মহলে। ধর্মভীরু তিনি কোনোদিনই ছিলেন না। বারবার নির্ভীকভাবে এমন নিদর্শনই  প্রকাশ্যে রেখেছেন তিনি। তবে এবার সম্পূর্ণ চোখ কপালে ওঠার মতো মন্তব্য করতে দেখা গেল তাকে,তাও মিডিয়ার সামনে! সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে রিজভি বলেছেন,”মুসলিমদের উচিত গোমাংস ভক্ষণ বন্ধ করা। ইসলামে গোমাংস খাওয়া নিষিদ্ধ। এটি হারাম।” এভাবে সরাসরি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়দের গো-মাংস খাওয়া থেকে বিরত থাকতে বলায় জল্পনা তুঙ্গে উঠেছে সংশ্লিষ্টমহলে।  তবে গো-রক্ষকরা যেভাবে গোটা দেশে স্বেচ্ছাচার শুরু করেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে অনেকেই রিজভির মন্তব্যকে সমর্থন করেছেন।

ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ তো বলেই দিয়েছেন, এ দেশে কোটি কোটি মানুষ গোরুকে মাতৃজ্ঞানে পুজো করেন। সেক্ষেত্রে শুধুমাত্র ব্যক্তিস্বাধীনতার দোহাই দিয়ে তাঁদের ভাবাবেগকে আঘাত করে গোহত্যা করা মোটেই শোভনীয় নয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিকে যেভাবে গোরক্ষার নামে যেভাবে তান্ডব চালাচ্ছে কিছু মানুষ তাকে কিছুতেই দমন করা যাচ্ছে না। স্বঘোষিত গোরক্ষকদেদের হামলার জেরেই সম্প্রতি প্রাণ হারিয়েছেন বেশকিছু সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরপরাধ মানুষ।  এর পরেই অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল পরিস্থিতি। সমালোচনার ঝড় উঠে যায় রাজনৈতিকমহল তথা আমজনতার মধ্যে। এর সঙ্গেই তাল মিলিয়ে চলছে রাজনৈতিক বিতর্ক। এ প্রসঙ্গে রিজভিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান সবাইকে নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব নয়। তেমনি বিক্ষিপ্ত কিছু গন্ডোগোল মানেই সামগ্রিক অবস্থার অবনমন নয়। গোহত্যাকারীরা অবশ্যই কড়া শাস্তির হকদার। এদিন কথায় কথায় তাকে আরএসএস নেতা ইন্দ্রেশ কুমারের মন্তব্যকেও সমর্থন করতে দেখা গেলো। জানালেন ইন্দ্রেশজির বক্তব্য যথাযথ যুক্তির উপরেই দাঁড়িয়ে আছে। গোহত্যা বন্ধ করলেই গনপিটুনির মতো ঘটনা থামবে,এমনটাই ধারণা তাঁর।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,রিজভিকে আগেও রামমন্দির নির্মান নিয়ে সমর্থন করতে দেখা গেছে। তথাকথিত জাতি,ধর্মের অধীন হয়ে মন্তব্য করেন না তিনি, না তাতে বিশ্বাস রাখেন। জানা গেছে শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের তরফ থেকে রামের মূর্তি সহ রূপোর তিরও দানও করা হয়েছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতেও আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। তবে হিন্দুত্ববাদী আরএসএস নেতাকে সমর্থন করার ঘটনাটি ঠিক ভাবে দেখেননি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একাংশ। অসন্তোষে ফুঁসছে তাঁরা, এবং জল্পনাও চলছে বিস্তর এমনটাই জানা যাচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!