এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > আদালতের নির্দেশে এবার আস্থাভোটের মুখোমুখি মুখ্যমন্ত্রী, বিজেপির ক্ষমতা দখল সময়ের অপেক্ষা!

আদালতের নির্দেশে এবার আস্থাভোটের মুখোমুখি মুখ্যমন্ত্রী, বিজেপির ক্ষমতা দখল সময়ের অপেক্ষা!


কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে বেশ কিছুদিন আগেই যোগদান করেছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। আর সিন্ধিয়া বিজেপিতে যোগদানের পরপরই তার পথ ধরে মধ্যপ্রদেশের অনেক কংগ্রেস বিধায়ক বিজেপিতে যোগদানের সম্ভাবনা উঠতে শুরু করেছে। যার ফলস্বরূপ বিজেপির পক্ষ থেকে কংগ্রেসের উদ্দেশ্যে জানানো হয়েছে যে, এবার মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় কংগ্রেস তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করুক।তবে বরাবরই মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ এই আস্থা ভোটকে এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

কিন্তু এবার দেশের শীর্ষ আদালতের নির্দেশে আস্থাভোটের মুখোমুখি হতেই হবে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকারকে। যার ফলে এখন সকলের নজর সেই মধ্যপ্রদেশের দিকে। কংগ্রেসই তাদের ক্ষমতা ধরে রাখবে, নাকি বিজেপি শেষ পর্যন্ত তাদের চমক দেখাবে, তার দিকে নজর রয়েছে সকলেরই।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত, অতীতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বে তৈরি হওয়া ডিভিশন বেঞ্চের পক্ষ থেকে মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার অধিবেশন শুরু করবার জন্য রাজ্যপালকে নির্দেশ দেওয়া হয়। আর আদালতের রায়ের পরই কিছুটা হলেও চাপে পড়ে মধ্যপ্রদেশের কমলনাথ সরকার। মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথ জানিয়ে দেন, আগে তারা আদালতের নির্দেশের সমস্ত প্রতিলিপি পড়বেন, তারপর তারা সিদ্ধান্ত নেবেন।

অন্যদিকে বিজেপির পক্ষ থেকে এই রায় নিয়ে তীব্র উচ্ছাস তৈরি হয়। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজনীতির পাশা খেলায় মধ্যপ্রদেশের পরিস্থিতি কোন দিকে যাবে, তা সকলের কাছেই অজানা। এখন শেষ পর্যন্ত আদালতে কি হয়, তার জন্য আর কিছুক্ষণ সময় অপেক্ষা করতেই হবে।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!