এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > হাইকোর্টে পেশ করা হল রাজ্যের সরকারী চিকিৎসা ক্ষেত্রের একটি নজিরবিহীন তথ্য

হাইকোর্টে পেশ করা হল রাজ্যের সরকারী চিকিৎসা ক্ষেত্রের একটি নজিরবিহীন তথ্য

সোমবার কলকাতা হাইকোর্টে পেশ করা হল রাজ্যের সরকারী চিকিৎসা ক্ষেত্রের একটি নজিরবিহীন তথ্য। জানা যাচ্ছে বর্তমানে রাজ্যের সরকারী চিকিৎসা ব্যবস্থায় প্রয়োজন কমপক্ষে ১৭০০ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার। সেখানে মাত্র ১১৭ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এই মুহূর্তে নিযুক্ত রয়েছেন।

এদিন এই তথ্য নিয়ে আদালতের স্মরণাপন্ন হলেন স্নাতকোত্তর কোর্স পড়তে ইচ্ছুক ১০৫ জন এমবিবিএস ডাক্তার।  যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও উচ্চশিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় সরকারি অনুমতি পাওয়া যাচ্ছেনা বলে তাঁদের অভিযোগ। এদিন বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্তের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি শেষ হয়েছে। এখন মামলার রায় ঘোষণার অপেক্ষা।

এই মামলার বয়ান অনুসারে জানা যাচ্ছে স্নাতকোত্তর কোর্সে ভর্তির জন্য ১৯৬ জনের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সরকারী অনুমোদন পাওয়া গিয়েছে কিন্তু   মামলাকারীদের ক্ষেত্রে সেই সরকারী অনুমোদন গ্রাহ্য হচ্ছেনা। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে সকল আবেদনকারীর স্নাতকোত্তর কোর্সে ভর্তির অনুমোদন মঞ্জুর করলে গ্রামীণ চিকিৎসা পরিষেবা ব্যাহত হবে। এমনকী বেশ কিছু চিকিৎসা কেন্দ্রও বন্ধ করে দিতে হতে পারে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

উল্লেখ্য একটি সরকারী নির্দেশিকা সূত্রে জানা যাচ্ছে কর্মরত চিকিৎসকদের (ট্রেনি রিজার্ভ) মধ্যে থেকে উচ্চশিক্ষার জন্য মাত্র ১০ শতাংশকেই মঞ্জুরী দেওয়া যাবে। যাঁরা কিনা সরকারী খরচে তাঁদের উচ্চ শিক্ষা লাভ করতে পারবেন। অবশ্য অভিযোগকারী এমবিবিএস চিকিৎসকদের মতে সরকারী নির্দেশিকা অনুসারে এই সুযোগ পাওয়ার জন্যে তারাও যোগ্য ছিলেন কিন্তু হিসেবের গরমিল করে তাঁদের প্রাপ্য নায্য সুযোগ থেকে তাঁদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। উল্লেখ্য এই একই অভিযোগে প্রথমে  ট্রাইব্যুনালে মামলা হয়।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!