এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > আদালতের ক্ষোভ দেখে সরকারের ‘সিভিক ভলান্টিয়ার’ দিয়ে ভোট করানো কি আপাতত জলে?

আদালতের ক্ষোভ দেখে সরকারের ‘সিভিক ভলান্টিয়ার’ দিয়ে ভোট করানো কি আপাতত জলে?

আদালতের ক্ষোভ দেখে সরকারের ‘সিভিক ভলান্টিয়ার’ দিয়ে ভোট করানো কি আপাতত জলে? প্রশ্ন উঠে গেলো। নিরাপত্তা জটে আটকে রয়েছে পঞ্চায়েত ভোট। বেসামাল অবস্থা রাজ্য নির্বাচন কমিশনের। আদালতের গেরোয় দ্বিতীয়বার ঘোষণা মতো ১৪ মে ভোট হবে কিনা তাতেও প্রশ্নচিন লেগে যাচ্ছে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে আগে থেকেই আদালত উদ্বেগ প্রকাশ করেছিল। আদালত নির্দেশ দিয়েছিল সমস্ত বিরোধীদের নিয়ে আলোচনা করে নিরাপত্তা ব্যাবস্থা সুনিশ্চিত করে ও আদালতে নিরাপত্তা বিষয়ে কি ব্যাবস্থা নেওয়া হয়েছে তা জানিয়ে ভোটার দিন স্থির করতে। কিন্তু রাজ্য সরকারের কাছে একপ্রকার মাথা নুইয়ে বিরোধীদের সাথে আলোচনা না করেই ১৪ মে ভোটের দিন ঘোষণা করে কমিশন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

ফলে আদালত ক্ষুব্ধ হয়। আর নিরাপত্তা বিষয়ে সম্পূর্ণ তথ্য না দিলে বাতিল হতে পারে ভোটও। তাই কমিশনকে দেখতে হবে বুথ অনুসারে সশস্ত্র বাহিনী কত সংখ্যক দিতে পারবে সরকার। পাশাপাশি রাজ্য সরকার প্রয়োজনে যে সিভিক ভলেন্টিয়ার, বনবিভাগ, কারারক্ষী বাহিনীকেও কাজে লাগাতে চায়। মনোনয়ন পর্বে অশান্তি এবং মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে তার পরে ওই সিভিক ভলেন্টিয়ার, বনবিভাগ, কারারক্ষী বাহিনীকেও দিয়ে ভোট করানোয় কতটা নিরাপত্তা থাকবে তাও আদালতের কাছে কমিশনকে পরিষ্কার ব্যাখ্যা দিতে হবে। ফলে আদেও কি সিভিক ভলেন্টিয়ার, বনবিভাগ, কারারক্ষী বাহিনী দিয়ে ভোট করানো যাবে কিনা তা নিয়েও থাকছে প্রশ্ন।

আমাদের ফেসবুক পেজে কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য নতুন নিউজ পোস্ট করতে খুব অসুবিধা হচ্ছে, সবসময় সব পোস্ট করাও যাচ্ছে না। তাই নতুন নিউজ পড়তে  দয়া করে চোখ রাখুন সরাসরি আমাদের পোর্টালে, ক্লিক করুন এই লিঙ্কে – priyobandhu.com

এই নিয়ে শুক্রবার আদালতে যাওয়ার আগে সরকারের মৌখিক আশ্বাস নয়, রীতিমতো হোমওয়ার্ক করতে হবে কমিশনকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে। এদিন আদালত কমিশন এবং সরকারকে রিপোর্ট দিতে বলেছেন ৪ মে। ফলে ৪ মে ডিভিশন বেঞ্চে কমিশনের রিপোর্টের উপরেই নির্ভর করবে পঞ্চায়েত ভোটের ভাগ্য। সেদিনই ঠিক হবে ১৪ মে আদৌ ভোটগ্রহণ সম্ভব হবে কিনা আর হলেও সেই ভোটেই নিরাপত্তার দ্বায়িত্বে থাকবে কে? রাজ্যসরকারের মনমতো বাহিনী নাকি কেন্দ্রীয় বাহিনী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!