এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > করোনার জন্য হজযাত্রার টাকা দান করলেন মুসলিম বৃদ্ধা !প্রশংসা সর্বত্র

করোনার জন্য হজযাত্রার টাকা দান করলেন মুসলিম বৃদ্ধা !প্রশংসা সর্বত্র


অনেক দিনের ইচ্ছা ছিল তিনি হজে যাবেন। সেই মত অনেকদিন ধরেই নিজের উপার্জন করা টাকায় এক জায়গায় জমা করেছিলেন। কথা ছিল, এবারই তিনি মক্কার উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন। তবে তার আগেই করোনা ভাইরাস তার সমস্ত স্বপ্নকে ভেঙে চুরমার করে দিল। দেশজুড়ে এখন লকডাউন চলছে। মানুষ ঘরের বাইরে বের হতে পারছেন না। তাই এমত পরিস্থিতিতে নিজের ভ্রমণের সমস্ত স্বপ্নকে ত্যাগ করে ভ্রমণের জন্য জমানো টাকা গরিব মানুষদের সাহায্যের জন্য রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংগঠনের তহবিলে দান করলেন জম্মু-কাশ্মীরের এক মুসলিম বৃদ্ধা।

আর নিজের সমস্ত স্বার্থকে ত্যাগ করে সপ্তাশি বছরের বৃদ্ধা খালিদা বেগম যেভাবে নিজের ভ্রমণের জন্য জমানো 5 লক্ষ টাকা দান করে দিলেন, তাতে তার মহানুভবতার পরিচয় পেল গোটা দেশবাসী। এদিন এই প্রসঙ্গে আরএসএসের মিডিয়া শাখা ইন্দ্রপ্রস্থ বিশ্বসংবাদ কেন্দ্রের প্রধান অরুন আনন্দ বলেন, “সেবা ভারতী যে ধরনের সমাজসেবামূলক কাজ করে, তা দেখেই খালিদা বেগম 5 লক্ষ টাকা দিয়েছেন আমাদের তহবিলে। গরিব কাশ্মিরিদের পাশে দাঁড়াতে আমরা তার ইচ্ছের মর্যাদা রাখব।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু প্রতিটি মানুষেরই তো জীবনে শখ থাকে, আহ্লাদ থাকে। যেখানে প্রত্যেকের লকডাউনের সময় গৃহবন্দি থেকে কার্যত প্রাণ ওষ্ঠাগত হয়ে আসছে, সেখানে ভ্রমণে যাওয়ার মত পরিকল্পনা করেও, নিজের জমানো টাকা যেভাবে সাধারণ গরিব মানুষদের উদ্দেশ্যে দান করে দিলেন মুসলিম বৃদ্ধা, তাতে কি তার বিন্দুমাত্র কষ্ট হচ্ছে না? ভ্রমণে যে তিনি যেতে পারলেন না, তাতে কি তার কোনো আফশোস নেই! এদিন এই প্রসঙ্গে 90 ছুঁইছুঁই সেই খালিদা বেগম বলেন, “এটাই বা কি কম পুন্যের বলুন।”

আর জীবনের শেষ সময়ে এসে মক্কায় যাওয়ার ইচ্ছে থাকলেও, সাধারণ মানুষের স্বার্থে যেভাবে ভ্রমণের টাকা দান করে দিলেন এক বৃদ্ধা, তা দেখে সকলেই খুশি। অনেকে বলছেন, একসময় মাদার টেরেজা বলেছিলেন, “তুমি যদি দৃশ্যমান মানুষকে ভালবাসতে না পারো, তাহলে তুমি অদৃশ্য ঈশ্বরকে ভালোবাসবে কি করে!” হয়ত বা করোনার ভয়াবহ মুহূর্তে ঈশ্বরের কাছে না গিয়ে মানুষের মধ্যে ঈশ্বর দেখবার জন্য সেই সাধারণের সেবায় নিয়োজিত হলেন খালিদা বেগম।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!