এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মন্দির চত্বরে আয়োজিত বিজেপির দলীয় কর্মীদের বৈঠকে উপহার খাবারের প্যাকেটে মদের বোতল

মন্দির চত্বরে আয়োজিত বিজেপির দলীয় কর্মীদের বৈঠকে উপহার খাবারের প্যাকেটে মদের বোতল

আয়োজন করা হয়েছিল দলীয় বৈঠকের – আর সেই বৈঠকে উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের দেওয়া টিফিনের বাক্সের মধ্যে থেকে মদের বোতল মেলায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল উত্তরপ্রদেশে। যে ঘটনায় বর্তমানে শোরগোল পড়ে গিয়েছে সর্বত্র। জানা যায়, উত্তরপ্রদেশের প্রভাবশালী বিজেপি বিধায়ক নীতিন আগরওয়ালের উদ্যোগে স্থানীয় শ্রবণাদেবী মন্দিরে একটি দলীয় বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

যেখানে উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের বৈঠক শেষে বিলি করা হয় টিফিন। অভিযোগ, সেই টিফিনের বাক্স থেকেই উদ্ধার হয় মদের বোতল। কিন্তু হঠাৎ বিজেপির তরফ থেকে দেওয়া এই টিফিন বক্সের ভেতরে কেন মদের বোতল ছিল? বিরোধীদের অভিযোগ, খাবারের প্যাকেটে মদের বোতল দিয়ে আসলে নিজেদের দলীয় কর্মীদের গোপন উপহার দিয়েছেন বিজেপি বিধায়ক নীতিন আগরওয়াল।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অনেকে বলছেন, কিছুদিন আগেই সমাজবাদী পার্টি থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের এই প্রাক্তন মন্ত্রী। এমন কি এদিনের এই দলীয় বৈঠকে সেই বিজেপি বিধায়ক নীতির আগরওয়ালের বাবা নরেশ আগরওয়াল উপস্থিত ছিলেন। ফলে টিফিন বক্সের ভেতরে থাকা জিনিসপত্রের কথা তিনি কি জেনেও না জানার ভান করে ছিলেন? বর্তমানে এইরকমই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে দলের অন্দরে।

অন্যদিকে দলের এই বৈঠক থেকে দেওয়া টিফিন বক্সের ভেতরে যে মদের বোতল ছিল এদিন সেকথা স্বীকার করে নিয়েছেন হারদোইয়ের বিজেপি সাংসদ অনুশুল বর্মা। তিনি বলেন, “ধর্মস্থানে মদ আনা বিজেপি সমর্থন করে না। আমরা যে সমস্ত শিশুদের হাতে কলম তুলে দিই, তাঁদের হাতে আজ মদের বোতল তুলে দেওয়া হয়েছে। এত বেশি মদ কোথা থেকে এলো তা খতিয়ে দেখা হবে। এটা সত্যিই একটা দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা”।

প্রসঙ্গত, ভারতের বিখ্যাত সব হিন্দু তীর্থস্থানে আমিষ খাবার পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়ার কথা ভাবছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বরা – যা নিয়ে কিছুদিন আগেই রীতিমত শোরগোল পরে গিয়েছিল জাতীয় রাজনীতিতে। আর তার পরিপ্রেক্ষিতে, সব মিলিয়ে মন্দির চত্বরে আয়োজিত বিজেপির দলীয় বৈঠক থেকে খাবারের প্যাকেটের ভেতর কেন মদের বোতল মিলল তা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রবল জল্পনা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!