এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার আমজনতা পাবে কংগ্রেসের টিকিট, শুধু একটা ছোট্ট শর্ত – জেনে নিন বিস্তারিত

এবার আমজনতা পাবে কংগ্রেসের টিকিট, শুধু একটা ছোট্ট শর্ত – জেনে নিন বিস্তারিত

এবার স্যোশাল মিডিয়ায় জনপ্রিয় হলেই মিলবে কংগ্রেসের প্রার্থী হয়ে ভোটে দাঁড়ানোর সুযোগ। তবে সেক্ষেত্রে প্রতিটি প্রার্থীর ফেসবুক পেজে ১৫ হাজার লাইক এবং ট্যুইটারো ৫ হাজার অনুসরণকারী থাকা আব্যশক। তবে শুধু ফেসবুক বা ট্যুইটার নয়,হোয়াটস অ্যাপেও গ্রুপ করে কর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে হবে। ট্যুইটারের অ্যাক্টিভ থেকে মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেসের অ্যাকাউন্টের সব পোস্টে লাইক, রিট্যুইট করতে হবে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে এমনটাই চিঠি দিয়ে জানালেন মধ্যপ্রদেশ কংগ্রেস কমিটির সোশ্যাল মিডিয়ায় সেলের মুখপাত্র রবি সাক্সেনা।

“সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনো ব্যক্তি অ্যাকটিভ থাকলে বোঝা যায় সে কতটা মানুষের কাছাকাছি আছে।”এমনটাই জানালেন রবি সাক্সেনা। তিনি মনে করেন,বর্তমান ডিজিট্যাইজেশানের যুগে সবার হাতেই স্মার্টফোন। তাই মানুষের সাথে যোগাযোগের একমাত্র সোজা পথ সোশ্যাল মিডিয়া। তাই এটাকে ব্যবহার করে মানুষের কাছে পৌছাতে হবে। প্রচার কর্মসূচি সারতে হবে।

ওদিকে,রাজ্য কংগ্রেসের তরফ থেকে জানা গিয়েছে, কংগ্রেসের তরফ থেকে ৪০০০ সাইবার যোদ্ধাকে বিধানসভা নির্বাচনে কাজে লাগানোর পরিকল্পনা রয়েছে। পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে ‘রাজীব কা সিপাহী’। তবে সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য বা অপপ্রচার চালানো যাবে না। সেটা করার খবর কানে এলেই সেই প্রার্থীকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হবে। এই গোটা বিষয়টির তদারকির দায়িত্ব রয়েছে নির্বাচনী কমিটির সোশ্যাল মিডিয়া বিশেষজ্ঞদের উপর।

উল্লেখ করার মতো বিষয় হল,গতবছর বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতিও উওর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনের সময় সোশ্যাল মিডিয়াকে হাতিয়ার করে প্রচার পর্ব সারার নির্দেশ দিয়েছিলেন। প্রত্যেক প্রার্থী ফেসবুক এবং ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে নিদেনপক্ষে ২৫ হাজার ফলোয়ার্স রাখার ফতোয়া জারি করেছিলেন। এ বছর মার্চেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দলীয় সংসদদের প্রত্যেকের ফেসবুক পেজে কমপক্ষে তিন লাখ ফলোয়ার্স রাখার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এর পাশাপাশি বিজেপি মধ্যপ্রদেশের আইটি সেলের প্রধান শিবরাজ সিং দাবীতে জানান,আগামী বিধান সভা নির্বাচনের প্রচারে ৬৫ হাজার সাইবার যোদ্ধা নামাবে গেরুয়াশিবির। বোঝাই যাচ্ছে আর শুধু মাঠে নেমে নয়,ভার্চুয়াল দুনিয়াতে ইন্টারনেটকে হাতিয়ার করেই প্রচার পর্ব সারার ইদূর দৌড়ে নেমে গিয়েছে মধ্যপ্রদেশের বিজেপি,কংগ্রেস। এবার সোশ্যাল মিডিয়ার জনপ্রিয়তার প্রতিযোগীতায় কে কাকে টক্কর দেবে সেটাই দেখার!

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!