এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “দেখ কেমন লাগে?” তৃণমূলকে বিঁধলেন কংগ্রেস বিধায়ক, কেন বললেন একথা, জেনে নিন

“দেখ কেমন লাগে?” তৃণমূলকে বিঁধলেন কংগ্রেস বিধায়ক, কেন বললেন একথা, জেনে নিন

কথায় আছে, ঠেলায় না পড়লে বিড়াল গাছে ওঠে না।গত 2011 সালে রাজ্যে পালাবদলের পর প্রথম ধাপে তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে জোট থাকলেও পরবর্তীতে কংগ্রেস বিরোধী আসনে বসে। আর এরপরই কংগ্রেস থেকে একাধিক বিধায়ককে নিজেদের দিকে ভাঙিয়ে আনতে শুরু করে তৃনমূল।

কিন্তু ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি হয়। আর তাইতো লোকসভা নির্বাচনের পরে যখন রাজ্যে বিজেপি ভালো ফল করেছে, ঠিক তখনই বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের হাত ধরে একাধিক তৃণমূলের বিধায়করা বর্তমানে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে শুরু করেছেন। যার জেরে এখন প্রবল অস্বস্তিতে পড়েছে ঘাসফুল শিবির। আর এই পরিস্থিতিতে এবার বিধানসভায় দাঁড়িয়ে সেই তৃণমূলকেই “দেখ কেমন লাগে” বলে খোঁচা দিলেন কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এদিন বিধানসভায় দাঁড়িয়ে তিনি বলেন, “42 এ 42, 2021 এই ফিনিশ। শেষের সেদিন ভয়ংকর হবে। একসময় ওরা পার্টি অফিস দখল করেছে। মুখ্যমন্ত্রী একদিন তিন লোকসভা পড়েছিলেন। ওদের মুখে মানুষ ঝামা ঘষে দিয়েছে। জিও তো এইসা জিও।” অন্যদিকে কাটমানি ইস্যুতে এদিন সরব হয়েও এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিধেন এই কংগ্রেস বিধায়ক।

অন্যদিকে পুলিশ প্রশাসনের প্রসঙ্গ টেনেও মনোজ চক্রবর্তী বলেন, “পুলিশকে উনি ভিলেন বানিয়েছেন। পুলিশ ওনাকে সাহায্য করবে। উনি মেরুকরণের রাজনীতি করেছেন।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এদিন দলবদলের স্মৃতিকে উস্কে দিয়ে তৃনমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই তুলোধুনো করলেন মনোজ চক্রবর্তী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!