এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > মহাজোটে বড় ধাক্কা দিয়ে মহাজোট থেকে বেরিয়ে একা লড়ার সিদ্ধান্ত রাহুলের

মহাজোটে বড় ধাক্কা দিয়ে মহাজোট থেকে বেরিয়ে একা লড়ার সিদ্ধান্ত রাহুলের

সারা ভারতে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে বিরোধী মহাজোট তৈরি হলেও বিভিন্ন রাজ্যের রাজনৈতিক সমীকরণের খাতিরে সেই জাতীয় রাজনীতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আদৌ কি সেখানে বিজেপি বিরোধীতায় বিভিন্ন বিজেপি বিরোধী দলের সঙ্গে বিভিন্ন দলের জোট হবে তা নিয়ে প্রথম থেকেই একটা সংশয় রয়েই গেছে।

উত্তরপ্রদেশে ইতিমধ্যেই কংগ্রেসকে ছাড়াই নিজেদের মধ্যে জোট করে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের কথা ঘোষণা করেছেন বহুজন সমাজবাদী পার্টির মায়াবতী এবং সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ সিং যাদব। আর এবার সবাইকে চমকে দিয়ে অন্ধপ্রদেশেও একা লড়ার কথা ঘোষণা করল কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি এই ব্যাপারে অন্ধ্রের সমস্ত দলীয় নেতা,কর্মী ও বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠক করে এআইসিসির সাধারণ সম্পাদক তথা কেরলের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমেন চান্ডি বলেন, ” অন্ধ্রের 25 টি লোকসভা এবং 175 টি বিধানসভায় একাই লড়বে কংগ্রেস।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

এমনকি জাতীয় ক্ষেত্রে বিজেপি বিরোধিতায় টিডিপির সাথে তাদের জোট থাকলেও রাজ্যে তাঁদের সাথে কংগ্রেস কোনোরূপ জোট করবে না বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর এইখানেই তৈরি হয়েছে জোর জল্পনা। বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজ্যগুলিকে বাদ দিয়ে তো জাতীয় রাজনীতি অসম্ভব।

কেননা এই বিরোধী মহাজোটে বিভিন্ন অংশগ্রহণকারী দল যদি বিভিন্ন রাজ্যে নিজেরা নিজেরাই পৃথক পৃথক ভাবে লড়ে, তাহলে কিভাবে জাতীয় রাজনীতিতে তা ঐক্যবদ্ধ রূপে প্রতিষ্ঠিত হবে! তা নিয়ে ইতিমধ্যেই একটি প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 2009 সালের আগে এইখানে কংগ্রেসের কিছুটা দাপট থাকলেও 2009 র লোকসভা নির্বাচনে গোটা অন্ধ্রকে কার্যত একাই দখল করে ফেলে হাত শিবির।

কিন্তু পরবর্তীতে এটি তেলেঙ্গানা এবং অন্ধ্র এই দুই রূপে ভাগ হলে সেখানে অনেকটা চাপে পড়তে হয় কংগ্রেসকে। তেলেঙ্গানায় কিছুটা প্রভাব বিস্তার করলেও অন্ধ্রে কার্যত নির্মূল হয়ে যায় তারা। পৃথক দল হিসেবে গড়ে তোলা জগন্মোহন রেড্ডির ওয়াইএসের চাপে ব্যাকফুটে পড়ে যায় তারা। কিন্তু এবার অবশেষে 2019 র লোকসভা নির্বাচনের আগে কারও সাহায্য না নিয়ে একাই এই রাজ্যে ঘুরে দাঁড়াতে চাইছেন রাহুল গান্ধী।

আর তাই তো এবার টিডিপির চন্দ্রবাবু নাইডুরা কংগ্রেসের সঙ্গে জোটের ব্যাপারে আশা প্রকাশ করলেও এই রাজ্যের কংগ্রেস নেতৃত্বরা সেই আশায় জল ঢেলে দিয়ে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে এখানে যে তারা একাই লড়বে সেই কথা স্পষ্ট করে দিল। আর এই ঘটনায় এখন জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপি বিরোধিতায় কংগ্রেসের সাথে আদৌ হাতে হাত ধরার ব্যাপারে টিডিপি সম্মতি প্রকাশ করে কিনা এখন সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!