এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বঙ্গে বিজেপি রুখতে কংগ্রেসের মধ্যস্থতায় হাতে হাত বামফ্রন্ট-তৃণমূলের

বঙ্গে বিজেপি রুখতে কংগ্রেসের মধ্যস্থতায় হাতে হাত বামফ্রন্ট-তৃণমূলের

বাংলায় গেরুয়া শিবিরকে রুখতে এখন মরিয়া তৃণমূল ও বামদল। পশ্চিমবঙ্গকে পদ্মফুলের প্রভাব থেকে মুক্ত করতে একই মঞ্চে এখন সক্রিয় সিপিএম ও ঘাসফুল শিবির। এদিন সোনিয়া গাঁধীর ডাকা নৈশভোজে একসাথে ভোজ সারলেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বাম সাংসদ মহম্মদ সেলিম। রাজ্যের শাসকদল ক্ষমতায় আসার আগে লোকসভা নির্বাচনে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপক্ষে প্রার্থী ছিলেন মহম্মদ সেলিম। এখন রাজ্যে গেরুয়া শিবিরকে ঠেকাতে সমীকরণ বদলাচ্ছে ঘাসফুল ও বামেদের। কংগ্রেস মুক্ত দেশ গঠনের ডাক দিয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি আর তাই দেশের সবচেয়ে প্রাচীন দল কংগ্রেসেরও এখন মূল উদ্দেশ্য বিজেপি দমন। এদিনের নৈশভোজের বিষয় সোনিয়া গাঁধী জানান, “গণতন্ত্রে বিরোধী কণ্ঠস্বর খুব গুরুত্বপূর্ণ। বিরোধীদের মধ্যে পারস্পরিক বোঝাপড়া মজবুত থাকাটাও খুব দরকার।” এদিনের নৈশ ভোজে উপস্থিত ছিলেন সিপিআই নেতা ডি রাজা, সপা নেতা রাম গোপাল যাদব, বিএসপি নেতা সতীশ চন্দ্র মিশ্র, এনসিপি নেতা শরদ পাওয়ার, ডিএমকে নেতা কানিমাঝি, আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব ও মিসা ভারতী প্রমুখ আঞ্চলিক দলের বিজেপি বিরোধী নেতারা এবং কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, একে অযান্টনি সহ অন্যান্য প্রবীণ নেতারা। প্রসঙ্গত,রাজ্যে বিজেপি শক্তি বাড়ছে। বঙ্গবাসীর মনে গেরুয়া রং ভালোভাবেই লাগতে শুরু করেছে। আর তাই এই রং মুছতে একই মঞ্চে একজোট হয়েছে তৃণমূল ও বামদল, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!